মেয়েদের চোখ সুন্দর করার দারুন উপায় এবং টিপস

নিজের চোখ গুলোকে আরো (আকর্ষক) সুন্দর কিভাবে বানানো যায় ? মেয়েদের চোখ সুন্দর করার উপায় গুলো কি কি ? 

চোখ সুন্দর করার উপায়

আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা এই প্রত্যেকটি বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করতে চলেছি।

আজকাল সব মেয়েরাই নিজের চোখ সুন্দর এবং আকর্ষক বানাতে চায়,

কারণ আমরা সকলই জানি যে আমাদের চোঁখ দেখতে সুন্দর হলেই আমাদের চেহেরার সুন্দরতা আরো দশগুন বেড়ে যাবে।

এখন প্রশ্ন হলো, আমরা কিভাবে নিজেদের চোঁখের যত্ন নিয়ে চোঁখগুলো আরো বেশি সুন্দর এবং আকর্ষক করে তুলতে সক্ষম হতে পারি ?

সেই টিপ্স গুলো  আজকে আমি আপনাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে বলতে যাচ্ছি।

তাহলে চলুন বন্ধুরা তাড়াতাড়ি করে নিচে দেওয়া টিপ্স গুলো বিস্তারিতভাবে জেনে নেওয়া যাক।

চোঁখের যত্ন নেওয়ার আগে ঠিক কি কি কারণে চোখের সুন্দরতা কমে যায় সেটা জেনে নিন ?

চোখের সৌন্দর্য কমে আসার কারণ গুলো

আমাদের চোখের সৌন্দর্য কমে আসার প্রচুর কারণ অবশই রয়েছে।

আর, চোখ কিভাবে সুন্দর করা যায় ? এই প্রশ্নের উত্তরে আপনাকে সবচে আগেই সেই প্রত্যেক কারণ গুলোর ওপরে নজর দিতে হবে,

যেগুলোর কারণে আপনার চোখের সুন্দর্য সময়ে সময়ে কমে আসতে পারে।

১. অনেক রাত অব্দি ফোন ব্যবহার করলে আমাদের চোঁখের ক্ষতি হয়ে থাকে এবং পরের দিন চোখগুলো অনেক ক্লান্ত দেখা যায়।

২. পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম না হলেও চোঁখের নিচ কালো পরে যায় এবং চোঁখের  সুন্দরতা কমে যায়।

৩. পুরোদিন আমরা যদি কম্পিউটার বা ল্যাপটপের স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকি, তখনও আমাদের চোঁখ ক্লান্ত দেখা যায় এবং সুন্দরতা কমে যায়।

৪. যদি আমরা আমাদের চোঁখে অত্যাধিক মেকআপ ব্যবহার করি তাহলেও আমাদের চোঁখের সুন্দরতা কমে আসতে পারে।

অনেক সময় আজেবাজে কোম্পানির খারাপ কোয়ালিটির মেকআপ এর জন্যেও চোখের সৌন্দর্যে খারাপ প্রভাব পড়তে পারে।

৫. আমাদের শরীরে রক্তের অভাব হলেও চোঁখগুলো দেখতে হলুদ লাগে এবং ক্লান্ত দেখা যায়।

তাই, বাইরের থেকে সৌন্দর্য দেখানোর জন্যে আপনাকে আগে নিজের শরীরকে ভেতর থেকে শক্তিশালী করতে হবে।

চোঁখ সুন্দর করার ক্ষেত্রে কিছু ছোটো ব্যাপারে সাবধান হওয়া উচিত

১. আমাদের নিজের চোঁখের উপর কখনো লেবুর রস ব্যবহার করতে নেই, কারণ লেবুর রসে এমন কিছু উপাদান আছে যা আপনার চোঁখে জ্বলন সৃষ্টি করতে পারে।

২. আমাদের নিজের চোঁখগুলোতে বেশি চাপ দেওয়া উচিত নয় এবং প্রখর রোদ থেকেও চোঁখগুলো বাঁচিয়ে রাখা দরকার।

৩. নিজের চেহারাতে কোনো ফেসপ্যাক বা ফেসমাস্ক ব্যবহার করলে তখন অবশই ধ্যান রাখতে হবে যে চোঁখের ভেতরে যাতে না যায়,

এবং চোঁখের উপর-নিচ অল্প ছেড়ে তারপর সেগুলো লাগানো উচিত।

৪. নিজের চোঁখের উপর যেকোনো কোম্পানির প্রোডাক্ট ব্যবহার করা উচিত নয়, সব সময় ভালো কোম্পানির প্রোডাক্ট ব্যবহার করা উচিত।

চোঁখ সুন্দর বানানোর জন্য কিছু টিপ্স । চোখ সুন্দর করার উপায়

যদি আপনিও নিজের চোঁখগুলো সুন্দর এবং আকর্ষক বানাতে চান,

তাহলে কিছু ছোটো ছোটো টিপ্স আছে যেগুলো ব্যবহার করে আপনি নিজের চোখের সুন্দরতা আরো বাড়িয়ে তুলতে পারেন।

১. শশার ব্যবহার :-

শশার ব্যবহার আপনার চোঁখ গুলো সুন্দর বানাতে অধিক সাহায্য করে থাকবে।

কারণ শশাতে এমন কিছু উপাদান থাকে যা আপনার চোঁখকে ঠাণ্ডা রাখে এবং চোঁখকে উজ্জ্বল করে তোলে।

আপনি একটি শশাকে কিছু সময়ের জন্য  ফ্রিজে রেখে দিন,

যখন শশাটি পুরো ঠাণ্ডা হয়ে যাবে তখন ফ্রিজ থেকে বের করে গোল গোল করে কেটে আপনার দুটোচোখেঁর উপর রেখে ১০, ১৫মিনিটের জন্য রিলাক্সভাবে শুয়ে থাকুন।

কিছুক্ষন এভাবেই থাকার পর, তারপর পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

এছাড়াও, আপনি চাইলে শশাকে মিক্সারে পেস্ট বানিয়ে তার মধ্যে গোলাব জল মিসিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিয়ে মিশ্রণটি আইসকিউবে ভোরে ফ্রিজে রেখে দিন।

তারপর মিশ্রণটি জমে গেলে শসার আইসকিউব গুলো চোঁখের উপর ১০ মিনিট রেখেদিন,

দেখবেন আপনার চোঁখে কতটা আরাম লাগবে এবং চোঁখগুলো অনেক ফ্রেশ অনুভব হয়ে থাকে।

যদি আপনি রোজ এই প্রক্রিয়া করতে পারেন অথবা একদিন পর পর করতে পারেন,

তাহলে আপনার চোঁখের ক্লান্তি দুর হয়ে যাবে এবং আপনার চোঁখ আগের থেকে অনেক সুন্দর দেখাবে।

২. গ্রিন টি বেগের ব্যবহার :-

চোঁখের সুন্দরতা বাড়ানোর জন্য আপনি গ্রিন টি বেগ ব্যবহার করতে পারবে।

কারণ গ্রীন টিতে ভরপুর মাত্রায় এন্টিঅক্সিডেন্ট আছে যা আপনার চোঁখের জন্য খুবই লাভদায়ক এবং এ আপনার চোঁখ সুন্দর বানাতে সাহায্য করবে।

দুটো গ্রিনটি বেগকে আপনি জলে ভিজিয়ে  কিছু সময়ের জন্য ফ্রিজে রেখে দিন,

ব্যাগ গুলো ভালো করে যখন ঠান্ডা হয়ে যাবে, তখন সেটি বের করে আপনার চোঁখের উপর ১০মিনিটের জন্য রেখে দিন।

তারপর আপনি পরিষ্কার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

যদি আপনি প্রতিদিন বা একদিন পর পর এই উপায়টি ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার চোঁখের ক্লান্তি দুর হবে এবং চোঁখের উজ্জ্বলতা বাড়ে।

৩. চোঁখের ব্যায়াম করা :-

আপনি যদি সকালে উঠে প্রতিদিন নিয়মিতভাবে কিছু চোঁখের ব্যায়াম করে থাকেন, তাহলেও সেটা আপনার চোঁখের সুন্দরতা বাড়তে সাহায্য করবে।

আপনি ইন্টারনেটে গিয়ে সার্চ করলেই অনেক রকমের চোখের ব্যাম গুলো পেয়ে যাবেন।

চোখ গুলোকে গোল গোল খুড়ানো, ওপর নিচ এবং দান দিক থেকে বাম দিকে ঘুরানো, এই ধরণের ব্যাম গুলো করতে পারেন।

এছাড়াও আপনি ৫মিনিটের জন্য চোখ বন্দ করে মেডিটেশন করুন,

চোখ বন্দ করে মেডিটেশন করলেও, আপনি অনেক ভালো অনুভব করবেন।

৪. ঠান্ডা জলের ব্যবহার :-

চোঁখের সুন্দরতা বাড়ানোর জন্য আপনি আপনার চোঁখ গুলো প্রতিদিন ঠান্ডা জল দিয়ে  ধুবেন।

ঠান্ডা জল দিয়ে চোঁখ গুলো ধুলে আপনার চোঁখ ঠান্ডা এবং পরিষ্কার হবে।

এরফলে, আপনার চোঁখ রিলাক্স অনুভব করবে এবং চোঁখের ক্লান্তিও অনেকটা দূর হবে।

এভাবে প্রতিদিন সকালে উঠে নিয়মিতভাবে ঠান্ডা জল দিয়ে চোঁখ ধুলে চোঁখ সুন্দর এবং ফ্রেশ দেখাবে।

৫. মেকাপের ব্যবহার :-

যদি আপনি আপনার চোঁখগুলো কিছু সময়ের মধ্যে সুন্দর বানাতে চান তাহলে আপনি মেকাপের ব্যবহার করতে পারেন।

কারণ মেকাপ আমাদের চোঁখের সুন্দরতা কিছু সময়ের মধ্যেই বাড়িয়ে তোলে এবং চোঁখগুলো আরো আকর্ষক বানিয়ে দিতে পারে।

আপনি আপনার চোঁখগুলো সুন্দর করার জন্য চোঁখে আইলাইনার, কাজল এবং আইশেডো ব্যবহার করতে পারেন।

এগুলো আপনার চোঁখগুলোকে সুন্দর করে তুলতে সাহায্য করে থাকবে।

কিন্তু ধ্যান রাখবেন, মেকআপ এর জন্যে আপনি যে প্রোডাক্ট গুলো ব্যবহার করছেন,

সেগুলো যাতে ভালো কোম্পানির এবং ন্যাচুড়েল প্রোডাক্ট হয়ে থাকে।

৬. গোলাপ জলের ব্যবহার :-

গোলাপ জলের ব্যবহার করেও আপনি নিজের চোঁখ সুন্দর বানাতে পারবেন,

কারণ গোলাপ জলে এমন কিছু উপাদান থাকে যা আপনার চোঁখ সুন্দর বানাতে সাহায্য করে থাকবে।

আপনি একটি বাটির মধ্যে গোলাপ জল নিন এবং তাঁতে একটি কটন পেড ভিজিয়ে অল্প সময়ের জন্য ফ্রিজে রেখে দিন।

তারপর যখন কটন পেডটি ভালো করে ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন সেটা ফ্রিজ থেকে বের করে আপনার দুটো চোঁখের উপর ১০মিনিট রেখে দিন।

এরপর আপনি আপনার মুখটি ঠান্ডা জল দিয়েধুয়ে ফেলুন।

এভাবে প্রতিদিন করলে আপনার চোঁখ আগের থেকে অনেক বেশি ফ্রেশ এবং সুন্দর দেখাবে।

৭. পর্যাপ্ত পরিমান ঘুমানো :-

আপনি যদি আপনার চোঁখ সবসময় সুন্দর এবং আকর্ষণীয় করে রাখতে চান,

তাহলে সঠিক এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানো আপনার জন্যে খুবই দরকার।

কারণ ঘুম যদি ঠিক মতো না হয় তাহলে সেটা আপনার চোঁখের মাধ্যমে স্পষ্ট ভাবে বুঝা যায়।

আপনার চোঁখ লাল দেখাবে, চোঁখের চারিদিকে ক্লান্তিভাব, চোঁখের নিচ কালা পড়ে যাওয়া ইত্যাদি বিভিন্ন লক্ষণগুলো দেখা যায়।

তাই এইসব লক্ষণ গুলো রাতে ভালো করে পর্যাপ্ত পরিমানের ঘুম নিয়ে ঠিক করা সম্ভব।

তাই আপনি যদি সুন্দর চোঁখ চান, তাহলে রাতে জলদি ঘুমানোর চেষ্টা করুন এবং কম পক্ষেও ৭ থেকে ৮ ঘন্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন।

৮. আইসকিউবের ব্যবহার :-

আপনি আপনার চোঁখকে ঠান্ডা এবং সতেজ বানানোর জন্য চোঁখের চার পাশে আইসকিউব দিয়ে ম্যাসাজ করুন।

আপনি এই প্রক্রিয়া দিনে একবার করুন সেটাই যথেষ্ট।

এরফলে ত্বক টাইট হবে এবং ডার্ক সার্কেল, চোঁখের ফোলাভাব ইত্যাদি  সমস্যা গুলো দূর  হয়ে যাবে ফলে চোঁখ গুলো সুন্দর দেখাবে।

 

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা আজকের এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমরা জানতে পারলাম চোঁখের যত্ন কিভাবে নেওয়া হয় এবং চোখ সুন্দর করার উপায় গুলো কি এবং কি কি টিপ্স ব্যবহার করলে আমাদের চোঁখগুলো আরো বেশি সুন্দর এবং আকর্ষক করা যায়।

আশা করি আমার এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনাদের ভালো লেগেছে।

আমাদের আজকের আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top