দুধের ব্যবসা কিভাবে শুরু করা যায় ? জরুরি তথ্য এবং নিয়ম গুলো

বন্ধুরা আজকে আমি এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে দুধের ব্যবসা কিভাবে শুরু করা যায় এবং উৎপাদন হওয়া দুধ কিভাবে বিক্রি করা যায় এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করতে যাচ্ছি।

দুধের ব্যবসা কিভাবে করব
How to start milk supply business in Bangla ?

আসা করি আমার এই আর্টিকেলটি দ্বারা আপনাদের কিছু সাহায্য অবশই করতে পারবো।

পুষ্টিকর খাদ্যর তালিকায় দুধের উল্লেখ রয়েছে। কারণ আমরা সকলেই জানি ছোটো থেকে বড় সকলের স্বাস্থ্যের জন্য দুধ একটি অনেক উপকারী খাদ্য।

সকালের চা থেকে শুরু করে অন্যান্য বিভিন্ন খাওয়ার জিনিস গুলো বানানোর জন্য প্রত্যেকটি ঘরে দুধের ব্যবহার করা হয়ে থাকে।আর তাই বাজারে দুধের চাহিদা বরাবর থেকেই থাকে।

আমাদের দেশে কৃষি ব্যবসার ভিতরে দুধ এর ব্যবসা একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা হিসাবে সবসময় থেকেই রয়েছে।

প্রাচীনকাল থেকেই মানুষ গরু, ছাগল, মোষ ইত্যাদির দুধ বিক্রি করে স্বাবলম্বী হয়ে আসছে।

তাই  গ্রামীণ ব্যবসার তালিকায় দুধ উৎপাদন ব্যবসা খুবই লাভজনক ব্যবসা হিসেবে ধরা যেতেই পারে।

বর্তমান সময়ে শহরেও বিভিন্ন অঞ্চলে ডেইরি ফার্ম খুলে মানুষ দুধ উৎপাদন করে ভালো টাকা আয় করছে।

তাই আপনিও যদি এই লাভজনক ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন, তাহলে নীচে বিস্তারিত ভাবে বলে দেওয়া বিষয় গুলো একবার ভালো করে জেনেনিন। 

দুধের ব্যবসা শুরু কিভাবে করবেন ?

যেকোনো ব্যবসা শুরু করার জন্য পরিকল্পনা করা খুব জরুরি। পরিকল্পনা ছাড়া কোনো ব্যবসা শুরু করা যায়না। তাই দুধের ব্যবসা যদি আপনি শুরু করবেন ভাবছেন তাহলে কিছু বিশেষ বিষয়ে জ্ঞান থাকা দরকার।

  • যেমন কোন ধরণের গরু বা মোষ পালন করলে ভালো মানের দুধ পাওয়া যাবে।
  • ব্যবসা শুরু করার জন্য কত টাকা নিবেশ করা জরুরি
  • কোন স্তরে ব্যবসা শুরু করতে চান।
  • গরু / মোষ পালন করার জন্য সঠিক জায়গার বিচার করা।
  • ব্যবসার মার্কেটিং কিভাবে করা যায় এবং এর থেকে কতটা লাভ হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে।

এছাড়া, ব্যবসা শুরু করার জন্য কি কি সাবধানতা নিতে হয় ইত্যাদি বিষয় গুলো নিয়ে তথ্য সংগ্রহ করে তারপরই ব্যবসা শুরু করা সম্বভ।

দুধে উৎপাদন ব্যবসা কি কি স্তরে করা যা ?

এই ব্যবসা মূলত তিনটি স্তরে শুরু করা যায় যেমন – 

১.  লঘু ডেইরি ফার্ম

২. মিনি ডেইরি ফার্ম

৩. ব্যবসায়িক ফার্ম

চলুন প্রত্যেক আলাদা আলাদা স্তর গুলোর বিষয়ে কিছুটা জেনেনেই।

১. লঘু ডেইরি ফার্ম

আপনারা যদি ছোটো স্তরে এই ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে ঘর থেকে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

এর জন্য আপনাকে দুটো গরু বা মোষ কিনে ব্যবসা শুরু করতে হবে।

আপনি আপনার এলাকার লোকেদের সাথে সম্পর্ক করে দুধ বিক্রি করতে পারবেন বা লোকের ঘরে গিয়ে গিয়েও দুধ বিক্রি করা যেতে পারে।

দুধের কোয়ালিটি যদি একবার সকলের ভালো লেগে থাকে তাহলে তারা আপনার রেগুলার গ্রাহক হয়ে যাবে।

২. মিনি ডেইরি ফার্ম

মাঝারি স্তরে ঠিক একই পদ্ধতিতে এই ব্যবসা শুরু করা হয় কিন্তু এতে লঘু ডেইরির তুলনায় টাকার পরিমাণ এবং জায়গার অল্প বেশি প্রয়োজন হয়ে থাকে।

এই স্তরে ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাকে ১০ থেকে ১৫ টার মতো গরু বা মোষ কিনে ব্যবসা শুরু করতে হবে।

এতে নিবেশ অল্প বেশি করতে হলেও এর থেকে লাভ করা টাকার পরিমান অধিক থাকবে এবং ফলে লাভের থেকে অল্প টাকা ব্যবসায় লাগিয়ে আসতে আসতে ব্যবসাটি বড়ো করতে পারবেন।

৩. ব্যবসাইক ফার্ম

বড় স্তরে দুধের উৎপাদন ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনার নিবেশ করা রাশির পরিমান অধিক থাকতে হবে। 

এই স্তরে ব্যবসা শুরু করার জন্য অধিক পুঁজির সাথে সাথে অনেক বড় জায়গার প্রয়োজন হয়ে থাকে তাই আপনার কাছে যদি বড় খালি জায়গা থাকে তাহলে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

এগুলো ছাড়াও আপনার পশুপালন সম্বন্ধে ভালো করে প্রশিক্ষন থাকা দরকার।

এই স্তরে দুধ উৎপাদন ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাকে ৩০ থেকে ৫০ টি গরু বা মোষ কিনে বড়ো পর্যায়ে ব্যবসা শুরু করতে হবে।

দুধের ব্যবসায় কোন ধরণের পশু পালন করা হয় ?

ব্যবসা শুরু করার জন্য মূলত গরু এবং মোষের পালন করা হয়ে থাকে।

ভালো মানের দুধ দেওয়া গরু বা মোষ থেকে প্রত্যেক দিন প্রায় ১০ লিটার দুধ পেয়ে যেতে পারবেন।

এধরণের অধিক দুধ উৎপাদন করা কিছু গরু বা মোষের নাম জেনে নেই চলুন –

১. অধিক দুধ উৎপাদন করা গরু 

হলস্টেন, ফ্রিজিয়ান, জার্সি, রেড সিন্ধি, সাহিওয়াল, গির, থার পাকর, রাঠি।

২. অধিক দুধ উৎপাদন করা মোষ

গোদাবরী, সাম্ভালপুরী, সূর্তি, মেহসানা, জাফরাবাদী, নাগপুরী, ভোদাবরী।

ব্যবসাতে কতটাকা নিবেশ করতে হয় ?

এই ব্যবসা কতটা বড় এবং ছোটো হবে সেটা সম্পূর্ণ নির্ভর করে আপনি কত টাকা ব্যবসায় নিবেশ করছেন।

আপনারা যদি ছোটো স্তরে গরু মোষ পালন করে দুধের ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে কম টাকা নিবেশ করে এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন।

ছোটো স্তরে ব্যবসা শুরু করার জন্য ৫০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১ লাখ টাকার নিবেশ করার প্রয়োজন হয়ে থাকে।

এক্ষেত্রে যদি বড় স্তরে এই ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে ৫ লাখ টাকা থেকে শুরু করে ১০ লাখ টাকা নিবেশ করে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

দুধের ব্যবসায় হওয়া লাভ ?

 যদি ছোটো স্তরে এই ব্যবসা শুরু করা হয় তাহলে ২ টি থেকে ৫ টি গরু / মোষ দিয়ে ব্যবসা শুরু করলেও প্রত্যেক মাসে ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা মুনাফা লাভ করা যাবে।

একটি গরু বা মোষ যদি এক দিনে ৭ থেকে ১০ লিটার দুধ দিয়ে থাকে তাহলে ৭ লিটার করেও যদি ধরা হয় ৫ টি গরু বা মোষ মাসে প্রায় ১০৫০ লিটার দুধ দিয়ে থাকে।

যদি প্রতি লিটার দুধ ৪০ টাকা করে বিক্রি হয়ে থাকে, তাহলে এক্ষেত্রে মাসে প্রায় ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন।  

এছাড়া, এই ব্যবসাটি যদি বড় স্তরে অনেক পশু নিয়ে শুরু করা হয় তাহলে মাসে প্রায় ২ লাখ থেকে আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত মুনাফা করা যায়।

ব্যবসার মার্কেটিং কিভাবে করা হয় ?

বর্তমান সময়ে খাঁটি দুধ পাওয়ার জন্য মানুষ বেশি দাম দিতে লাগলেও সেটা অবশই দিয়ে থাকে।

এক্ষেত্রে আপনি যদি ঘর থেকে ছোটো স্তরে দুধের ব্যবসা শুরু করেন তাহলে আসে পাশের লোকেদের কাছে নিজের গোয়ালার দুধ বিক্রি করে ভালো টাকা লাভ করতে পারবেন।

আপনার দুধের কোয়ালিটি যদি ভালো হয় তাহলে লোকে আপনার কাছেই আসবে এবং সকলের মুখে মুখেই  আপনার গোয়ালার প্রচার হয়ে যাবে।

এছাড়া জায়গায় জায়গায় দুধ বিক্রি করা দুধওয়ালার সাথে যোগাযোগ করে ব্যবসার প্রচার করতে পারেন।

বিভিন্ন মিষ্টির দোকান থেকে শুরু করে দুধ থেকে তৈরি করা দৈ, লসসি,পনির ইত্যাদির কারখানায় যোগাযোগ করে নিজের দুধ সাপ্লাই ব্যবসার মার্কেটিং করতে পারেন।

ডেইরি ফার্ম ব্যবসার পঞ্জিকরণ কোথায় এবং কিভাবে করে ?

আপানারা যদি ছোটো স্তরে একটি বা দুটো গরু মোষের দুধ বিক্রি করে ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন, তাহলে পঞ্জীকরণের প্রয়োজন হয়না। কারণ সেক্ষেত্রে ব্যবসাদার নিজের জমানো পুঁজি লাগিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারে।

কিন্তু  যখন বড় স্তরে অনেক পশু নিয়ে ব্যবসা শুরু করার কথা আসে তখন সরকার বা ব্যক্তিগত সংস্থা গুলোর থেকে লোন নিয়ে ব্যবসা শুরু করতে হয়।

তাই সরকার থেকে বা ব্যক্তিগত সংস্থা থেকে ঋণ নেওয়ার অনেক রকম প্রক্রিয়া থাকে যেগুলো মেনে ঋণ নিতে হয়। ঋণ নেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার ব্যবসার জায়গা এবং পঞ্জীকরণের কাগজ পত্র অবশই দেখাতে হয়।  

বড় স্তরে দুধে এর ব্যবসা শুরু করার জন্য স্থানীয় সরকারি পঞ্জীকরণ দফতরে জিয়ার আপনার ব্যবসার পঞ্জীকরণ করতে হবে।এর সাথে সাথে আপনার ব্যবসার জন্য ট্রেড লাইসেন্স, FSSAI লাইসেন্স ইত্যাদি বের করতে হয়।

দুধের ব্যবসা শুরু করার জন্য সরকারি পরিকল্পনা ?

বর্তমান সময়ে কৃষকদের পশুপালন করার জন্য এবং পশুপালন সম্পর্কিত বিভিন্ন ব্যবসার প্রতি লোকেদের উৎসাহিত করার জন্য সরকার থেকে কৃষকদের জন্য বিভিন্ন ধরনের পরিকল্পনা গুলো করা হয়েছে।

যেখানে লোন দেওয়ার থেকে শুরু করে পশুর বীমা করানো এবং লোনের উপর সাবসিডির দেওয়ার ব্যবস্থা করা রয়েছে।

তাই ডেইরি ফার্ম ব্যবসা শুরু করার ক্ষেত্রে সরকার থেকে কৃষকদের জন্য বিভিন্ন schemes গুলো রয়েছে যার সাহায্যে কৃষকরা ব্যাংক থেকে সহজে লোন নিয়ে ভালো করে ব্যবসা শুরু করতে পারে।

যদি কৃষকরা বড়ো করে ডেইরি ফার্মের ব্যবসা করতে চায় তাহলে অনেক বেশি টাকা লোনের প্রয়োজন পড়বে।

তাই ভারত সরকার দ্বারা কৃষকদের জন্য বর্তমান সময়ে বড়ো স্তরে ডেইরি ফার্ম ব্যবসা শুরু করার জন্য Kamdhenu scheme বের করা হয়েছে।

এধরণের লোন এবং লোনের উপর পাওয়া সরকারি সাবসিডির ফলে বর্তমান সময়ে কৃষকরা ডেইরি ফার্মের ব্যবসা করে অধিক লাভবান হতে পারছেন। 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link