বন্ধুর রাগ ভাঙ্গানোর সেরা ৭টি উপায় গুলো কি কি ?

বন্ধু রেগে থাকলে কি করবেন ? বন্ধুর রাগ ভাঙ্গানোর উপায় গুলো কি কি ? আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করতে চলেছি। 

বন্ধুর রাগ ভাঙ্গানোর উপায়

বন্ধুত্ত্বকে সব থেকে সুন্দর সম্পর্ক বলা যেতে পারে কারণ সময় খারাপ হোক বা ভালো, বন্ধুই একমাত্র ব্যক্তি যে  সব সময়  আপনার সাথে থাকে এবং পাশে থাকে। 

প্রত্যেকের জীবনেই কোনো না কোনো বিশেষ বন্ধু থাকে যার সাথে নিজের সুখ দুঃখ এবং ভালো খারাপ বিভিন্ন রকমের মনের কথা নিঃসন্দেহে বলা যায়।

কিন্তু সব সম্পর্কেই মাঝে মাঝে কম বেশি ঝগড়া মনোমালিন্য হয়েই থাকে।

আর ঠিক সেভাবেই বন্ধুর সম্পর্কেও মাঝে মাঝে ছোটো ছোটো কথা নিয়ে ঝগড়া হয়ে যেতেই পারে।  

তাই আপনারও  যদি কোনো বিশেষ বন্ধু থাকে এবং আপনার সাথে আপনার বন্ধু কোনো কারণে যদি রেগে আছে, তাহলে এই আর্টিকেলটি নিশ্চই মন দিয়ে পড়ুন। 

কেননা, আজকের এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমরা জানতে পারব বন্ধুর রাগ কমানোর উপায় গুলো কি কি এবং এই উপায় গুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার বন্ধুর রাগ নিশ্চই ভাঙ্গাতে সক্ষম হবেন। 

বন্ধুর রাগ ভাঙ্গানোর উপায় গুলো কি কি ?

তাহলে চলুন বন্ধুরা নিচে দেওয়া প্রত্যেকটি উপায়ের বিষয়ে বিস্তারিতভাবে যেন নেওয়া যাক। 

১. পুরানো কথা ভুলে ফোন করুন

সব থেকে প্রথম যে কথা নিয়ে আপনাদের মধ্যে ঝগরা হয়েছে সেগুলো কথা মন থেকে বের করে দিন এবং তাঁকে নিজেই ফোন করুন।

এবং ভুল যদি আপনার থাকে তাহলে তাঁকে সরি বলুন, দেখবেন আপনার এইটুকু কথা শুনেই  তাঁর আধা রাগ কমেই যাবে।

 ঝগরা হলে ভুল নিজের থাকলেও তখন আমরা রাগের মাথায় সেটা মানতে চাইনা এবং তর্ক বিতর্ক করে থাকি।

তাই আপনার ক্ষেত্রেও যদি এটা হয়ে থাকে তাহলে দেরি না করে আপনার বন্ধুকে ফোন করুন এবং সরি বলে সব মনোমালিন্য শেষ করুন।

এতে দেখবেন আপনার বন্ধু আর আপনার থেকে রেগে থাকতে পারবেনা। 

২. অন্য বন্ধুদের সাহায্য নিন

আপনার রেগে থাকা বন্ধুর রাগ ভাঙ্গার জন্য অন্নান্য বন্ধুদের সাহায্য নিতে পারেন।

যেমন, তাঁকে না জানিয়ে তাঁর পছন্দের জায়গায়  ঘুরতে যাওয়ার প্ল্যান বানাতে পারেন। 

এছাড়া, অন্য বন্ধুদের দিয়ে তাঁকে ঘুরতে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করুন এবং এটা ধ্যান রাখুন  আপনিও যে সাথে যাচ্ছেন সেটা যাতে সে শুরুতে জানতে না পারে।

কারণ, হয়তো আপনি যাচ্ছেন শুনে রাগে সে না বলে দিতেও পারে। 

তাই আপনি আলাদা ভাবে যাবেন এবং সকলের সামনে বলবেন তাঁর রাগ ভাঙ্গানোর জন্যই আপনি এতো কিছু প্ল্যান করেছেন। 

এতে দেখবেন আপনার বন্ধু আর আপনার থেকে রেগে থাকতে পারবেনা এবং তাঁর রাগ ভাঙ্গার জন্য করা প্ল্যান এর কথা শুনে সে সব কথা ভুলে আবার আগের মতো আপনার সাথে কথা বলতে শুরু করবে। 

৩. তাঁর সাথে দেখা করুন

অনেক সময় দেখা গেছে যে, পাশা পাশি কথা না বলার কারণে আমাদের মনে ভুল বুঝাবুঝি গুলো চিরকাল থেকেই যায়।

তাই, যদি আপনার বন্ধুর সাথে আপনার ঝগড়া বা তর্ক-বিতর্ক হয়ে থাকে, তাহলে তার সাথে পাশাপাশি বলে অবশই কথা বলুন।

এক্ষেত্রে, আপনার রেগে যাওয়া বন্ধুকে মানানোর জন্য তাঁকে ফোন করে দেখা করার জন্য বলুন। 

যদি সে আপনার সাথে দেখা করার জন্য মানা করে দেয় তাহলে তাঁকে অন্তত একবারের জন্য দেখা করার অনুরোধ  করুন।

এক্ষেত্রে আপনার বন্ধু যতই আপনার থেকে রেগে থাকনা কেনো আপনি যখন তাঁকে শুধু একবার দেখা করার কথা বলবেন সে আপনার সাথে রেগে থাকলেও নিশ্চই দেখা করতে আসবে। 

যখন সে আপনার সামনে আসবে তখন আপনি তাঁকে দেখেই গলায় জড়িয়ে ধরুন এবং তাঁকে এটা বলুন যা হয়েছে সব ভুলে যা এবং নিজেদের মনের ভুল বুঝাবুঝি গুলো দূর করে ফেলুন। 

তখন দেখবেন আপনার বন্ধু আর আপনার থেকে রেগে থাকতে পারবেনা এবং সব আগের মতো ঠিক হয়ে যাবে। 

৪. কোনোভাবেই কথা বলা বন্ধ করবেননা

আপনার বন্ধু আপনার সাথে কথা বলা বন্ধ করে দিলেও  আপনি কোনোভাবেই তাঁর সাথে কথা  বলা বন্ধ করবেননা।

 কারণ যখন আপনার বন্ধু দেখতে পাবে যে সে আপনার সাথে কথা বলা বন্ধ করে দিলেও আপনি তাঁর সাথে কথা বলা বন্ধ করেননাই, তখন তাঁর একবার হলেও অনুভব হবে যে আপনি তাঁকে কতটা ভালোবাসেন এবং আপনার উপর করা অভিমানো তার কমে যাবে। 

 এই উপায়টি আপনারা নিশ্চই ব্যবহার করে দেখতে পারেন এবং এই উপায়টি খুবই কার্যকর।  

৫. নিজের হাথে সরি কার্ড বানিয়ে দিন

যদি আপনার বন্ধু আপনার সাথে অনেক বেশি রেগে থাকে এবং আপনার ফোন মেসেজে কিছুর উত্তর সে দিচ্ছেনা,

তাহলে তাঁকে মানানোর জন্য অন্য কিছু উপায় ভাবুন,

যেমন নিজে হাথে তাঁর জন্য কার্ড বানান এবং যে কথাগুলো আপনি তাঁকে ফোনে বলতে পারছেন না সেই কথাগুলো আপনি কার্ডের মাধ্যমে লিখুন। 

এবং কার্ডটি অন্য কোনো বন্ধুর মাধ্যমে বা আপনি যদি এটি বাক্তিগত রাখতে চান তাহলে কুরিযারের মাধ্যমে তাঁর ঘরে পাঠাতে পারেন। 

আপনার করা এই প্রচেষ্টা দেখে আপনার বন্ধুর রাগ নিশ্চই কম হবে এবং সে আপনাকে নিজেই ফোন করবে। 

এক্ষেত্রে আপনি কেনা কার্ড ব্যবহার করবেননা, কারণ আপনার হাথে বানানো কার্ড দেখলে সে বেশি খুশি হবে। 

৬. তাঁর পছন্দের খাওয়া বানিয়ে নিয়ে যান

আমাদের সকলের ক্ষেত্রেই এটা হয়ে থাকে, যখন আমাদের সামনে পছন্দের খাবার আসে তখন আমাদের রাগ অল্প হলেও কমে যায়। 

তাই আপনার বন্ধুর রাগ ভাঙ্গানোর জন্য এই উপায়টি একবার করে দেখতে পারেন।

যেমন তাঁর পছন্দের সব খাবারগুলো বানিয়ে তাঁর ঘরে নিয়ে যান। 

এবং, সে খেতে না চাইলে আপনি তাঁকে বলুন যে সে যতসময় না খাবে আপনিও কিছু খাবেনা।

 তখন দেখবেন আপনার বন্ধু নিশ্চই খাবে এবং আপনাকেও খাইয়ে দিবে এবং আবার সব আগের মতো ঠিক হয়ে যাবে। 

৭. সারপ্রাইস গিফ্ট দিন

অনেক সময় দেখা যায় আমরা যখন রেগে থাকি তখন আমাদের পছন্দের কোনো গিফ্ট পেলে আমাদের রাগ তক্ষনাৎ কমে যায়।

এছাড়া, গিফ্টটি যদি নিজের কারো থেকে পাওয়া যায় তাহলে আরো বেশি ভালো লাগে। 

 তাই আপনার বন্ধুও যদি কোনো কারণে আপনার সাথে রেগে থাকে তাঁহলে আপনিও তাঁকে তাঁর পছন্দের কোনো গিফ্ট সারপ্রাইস হিসেবে দিন। 

আপনার দেওয়া গিফ্ট দেখে সে প্রথমে অল্প রাগ দেখালেও কিছুক্ষণ পর তাঁর রাগ নিশ্চই ভাঙ্গবে এবং আবার আগের মতো আপনার সাথে কথা বলতে শুরু করবে। 

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, যদি আপনার বন্ধু আপনার ওপরে রেগে আছে এবং আপনি তার রাগ কমানোর উপায় খুঁজছেন, তাহলে উপরে বলা উপায় গুলো অবশই ব্যবহার করে দেখুন।

এতে আপনার বন্ধুরা রাগ অবশই কমে আসবে।

ওপরে বলা বন্ধুর রাগ কমানোর উপায় গুলো যদি সত্যি আপনাদের ভালো লেগে থাকে, তাহলে নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন। 

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top
Copy link