নিজের মন ভালো করার উপায় এবং টিপস । মন খারাপ হলে কি করবেন

মন ভালো করার উপায়: বন্ধুরা এখনের আধুনিক সময়ে মানুষের চাহিদা, কাজ এবং জীবনের সমস্যা গুলো প্রচুর পরিমানে বেড়ে গিয়েছে।

আর তাই, জীবনের প্রত্যেকটি ধাপে নিজেকে ভালো রাখার উপায় আমাদের খুঁজতে হয়।

তবে, যদি আপনি একা খুশি থাকার উপায় গুলো জেনেনিতে পারেন, তাহলে মন হাসি খুশি রাখার জন্য আপনাকে অন্যের ওপরে ভরসা করে থাকতে হয়না।

এমনিতে, নিজের মন ভালো করে রাখা জন্য বা মন খুশি করার জন্য আমাদের তেমন বিশেষ কিছুই করতে হয়না।

কেবল কিছু ছোট ছোট বিষয় গুলোতে ধ্যান দিয়ে আমরা আমাদের মন খুশি করে রাখতে পারি।

মনে রাখবেন, প্রত্যেকের জীবনেই কিছু না কিছু সমস্যা এবং অসুবিধা অবশই রয়েছে।

তাই, আপনার ক্ষেত্রেও হতে পারে প্রচুর রকমের চিন্তা, সমস্যা বা অভাব গুলো আপনাকে খুশি হয়ে থাকতে দিচ্ছেন।

কিন্তু, আপনাকে নিজের মনের জোরের সাহায্যে প্রত্যেক বিপদের সাথে লড়াই করে এগিয়ে যেতেই হবে।

কারণ, জীবন মানেই হলো সংঘর্ষ এবং খুশি ও দুঃখের আলাদা আলাদা সময়।

চলে যাওয়া দিনের কিছু স্মরণীয় মুহূর্ত, খারাপ সময় বা ভবিষ্যতের চিন্তা আমাদের প্রত্যেককেই মন মরা করে রাখার জন্যে যথেষ্ট।

কিন্তু, যদি আপনি চির জীবন মন মরা হয়েই থাকছেন, তাহলে জীবনের মজা নিবেন কখন।

তাই যদি আপনার সমস্যাটাও ঠিক এরকম এবং আপনি ভাবছেন যে মন খারাপ হলে কি করবেন, তাহলে নিচে এমন ১১ টি মন ভালো করার উপায় বলে দিচ্ছি যেগুলোর মাধ্যমে নিজেকে খুশি করে রাখতে পারবেন।

নিজের মন ভালো করার উপায় গুলো কি কি ?

মন ভালো করার উপায়
How to be happy when you are sad ?

বন্ধুরা, মন খারাপ হলে কি করবেন ? বা মন ভালো করার টিপস গুলো কি কি সেই বিষয়ে আমি নিচে বলে দিচ্ছি।

আপনারা, প্রত্যেকটি উপায় বা টিপস গুলোকে ভালো করে জেনেনিন যাতে নিজেকে ভালো রাখার ক্ষেত্রে এগুলো আপনার কাজে লাগতে পারে। 

মন ভালো করার গান 

আমি আমার নিজের অভিজ্ঞতা এবং অনুভব থেকে বলছি যে যদি আপনার মন খারাপ হয়ে রয়েছে তাহলে আপনার ভালো লাগা গান গুলো শুনুন।

গান শুনলে আমাদের মনে হটাৎ খুশির অনুভব সৃষ্টি হয়ে থাকে এবং মনের দুশ্চিন্তা গুলোর থেকে আপনার ধ্যান সরে যাবে।

প্রচুর studies থেকে বোঝা গেছে যে যখন আমরা আমাদের পছন্দের গান শুনে থাকি তখন আমাদের brain এর মধ্যে dopamine নামের একটি chemical মুক্তি পেয়ে থাকে।

আর এই dopamine chemical মূলত আমাদের মন মেজাজ ভালো রাখার বা মন ভালো ও খুশি রাখার জন্য একটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

তাই, যদিও বা আপনার গান শোনার প্রতি তেমন রুচি নেই আপনি headphones কানে লাগিয়ে একবার একটি গান শুনে দেখুন।

দেখবেন, হটাৎ আপনার খারাপ হয়ে থাকা মন ভালো লাগতে শুরু হবে।

নিজেকে কাজে ব্যস্ত রাখুন 

যখন আপনি সকাল থেকে বিকেল কোনো কাজ ছাড়া এমনেই বসে শুয়ে কাটাবেন তখন আপনার মন কখনোই ভালো থাকবেনা।

মনে রাগ রাগ ভাব, চিন্তা, অলস বা কুঁড়ে ভাব, কথা বলতে ইচ্ছে না করা এই সমস্ত সমস্যা দেখা দিবে।

কারণ, যখন আমরা কোনো কাজ না করে এমনি বসে বা শুয়ে থাকি তখন আমাদের মন (mind) একেবারেই খালি হয়ে থাকে এবং তার কাছে কোনো কাজ থাকেনা।

আর যখন mind এর কাছে কোনো কাজ থাকবেনা সে প্রচুর দুশ্চিন্তার (negative thoughts) গুলো আপনার মনে নিয়ে আসতে থাকবে যার ফলে আপনার মন খারাপ লাগবে।

তাই, প্রত্যেক দিন নিজের মাইন্ড (mind) কে কাজ দিন, নতুন কিছু শিখুন বা নিজেকে ব্যস্ত রাখতে চেষ্টা করুন।

যখন আপনি ব্যস্ত হয়ে থাকবেন তখন মাথায় negative thought আসতে সুযোগ পাবেনা যার ফলে আপনার মন ভালো থাকবে।

এছাড়া, যখন আপনি ছোট-বড় কাজ গুলোকে সঠিক ভাবে সম্পূর্ণ করে থাকেন তখন মনে একটি সন্তুষ্টির ভাব তৈরি হয়।

আর এই সন্তুষ্টির ভাব আমাদের মনে কিছু feel good chemical মুক্তি করে থাকে যার ফলে দিনের শেষে আমাদের মন ভালো থাকে।

আমি আমার নিজের অভিজ্ঞতার থেকে এই কথা বলছি,

আর তাই, যদি আপনার মন ভালো লাগছেনা এবং নিজেকে ভালো রাখার উপায় খুঁজছেন,

তাহলে একবার নিজেকে ব্যস্ত করে রাখার এই প্রক্রিয়া ব্যবহার করেই দেখুন।

লোকেদের সাথে মিলতে চেষ্টা করুন 

সব সময় মন ভালো না লাগার সমস্যা তাদের মধ্যে বেশি দেখা যেতে পারে যারা বেশিরভাগ সময় একা থাকেন।

তাই, যতটুকু সম্ভব লোকেদের সাথে মিশতে এবং বন্ধুত্ব করতে শিখুন।

এতে আপনি তাদের মাধ্যমে বিভিন্ন নতুন নতুন কথা, জীবন যাপনের প্রণালী ইত্যাদির বিষয়ে জানতে পারবেন ও শিখতে পারবেন।

এছাড়া, নিজের মনের কথা কোনো বিশেষ বন্ধু বা প্রিয়জনের সাথে share করে মন হালকা করতে পারবেন।

যদি বর্তমান সময়ে আপনার মন ভীষণ খারাপ লাগছে, তাহলে জোর করে হলেও কারো সাথে কথা বলেই দেখুন না।

সে আপনার ঘরের যেকোনো সদস্য হলেও হবে, দেখবেন কিছুক্ষন কথা বলার পর আপনার মন অনেকটুকু ভালো লাগতে শুরু হবে।

মনে রাখবেন, টক থেরাপির (talk therapy) মাধ্যমে অনেক জটিল মানসিক সমস্যা গুলোর সমাধান সহজেই করা যায়।

তাই, সাধারণ মন ভালো না লাগার সমস্যা এর মাধ্যমে সহজেই দূর করতে পারবেন।

একবার এই প্রক্রিয়া ব্যবহার করেই দেখুন না।

বই পড়ে মন ভালো রাখুন 

বর্তমান সময়ে বই পড়ার ট্রেন্ড অনেক কমে গিয়েছে এবং এখনের জেনারেশন মোবাইল এবং কম্পিউটার ছাড়া কিছুই চিনেননা।

কিন্তু, বই পড়ে মন ভালো রাখার এই প্রক্রিয়া কিন্তু আগেকার সময়ে প্রচুর জনপ্রিয় ছিল।

যখন আপনি কোনো ভালো বই পড়ছেন, তখন আপনার মন সম্পূর্ণ ভাবে সেই বই এর তথ্যের ওপরে ধ্যান দিয়ে থাকে।

যার ফলে, বই এর মধ্যে থাকা তথ্য, রহস্য, গল্প, কাহিনী, চরিত্র ইত্যাদি আপনাকে আপনার চিন্তা এবং ভয় থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করে।

আর নিয়মিত ভাবে নিজের খালি সময়ে বই পড়ার অভ্যেস করতে পারলে দেখবেন আপনার মন আগের থেকে অনেক ফুরফুরে এবং খুশি হয়ে থাকবে। 

আমিও ধীরে ধীরে বই পড়ার অভ্যেস এর মাধ্যমে নিজের মন মেজাজ প্রচুর ভালো করে রাখতে সফল হয়েছি।

বিশ্বাস করুন, ভালো ভালো বই পড়ে আপনি নিজেকে সম্পূর্ণ চেঞ্জ করে ফেলতে পারবেন।

Meditation করুন 

সাথে সাথে মন ভালো রাখার এর থেকে দারুন উপায় আমার হিসেবে অন্য কিছুই নেই।

যদি আপনি নিয়মিত ভাবে ধ্যান (meditation) করে থাকেন তাহলে নিজের মধ্যে প্রচুর ভালো পরবর্তন নিয়ে আসতে পারবেন।

মনের ভয়, চিন্তা, নেগেটিভ ভাব ইত্যাদি সবটাই meditation এর মাধ্যমে দূর করা সম্ভব।

সকালে জলদি উঠে কিছু সময় meditation করেই দেখুন না, দেখবেন প্রথম দিন থেকেই নিজের মধ্যে এক পসিটিভ পরিবর্তন অনুভব করতে পারবেন।

ধ্যান এর সাথে সাথে ব্যাম অভ্যেস করতে পারলে সেটা আরও ভালো এবং গুনশীল।

ধ্যান এবং ব্যাম এর মাধ্যমে আপনি আপনার মাইন্ড (mind) কে সতেজ (fresh) এবং চিন্তা মুক্ত করে রাখতে পারবেন।

যখনি আপনার মন অনেক খারাপ লাগবে তখন একা কিছু সময় ধ্যান (meditation) করে দেখুন।

দেখবেন, সাথে সাথে আপনার মন কিছুটা পসিটিভ এবং ভালো হয়ে যাবে।

উদ্দেশ্যের প্রতি ফোকাস 

যদি আপনার জীবনে কোনো উদ্দেশ্য নেই তাহলে এখনি নিজের উদ্দেশ্য নির্ধারিত করুন।

কারণ, উদ্দেশ্য ছাড়া আপনার জীবনে কোনো ধরণের মজা থাকবেনা আর তাই মন ভালো রাখতে সমস্যা হবে।

যদি আপনি নিজেই জানেননা যে জীবনে আপনি কোথায় যাচ্ছেন, তাহলে খুশি থাকবেন কিভাবে।

কিন্তু, যখন আপনার জীবনের একটি উদ্দেশ্য নির্ধারিত করবেন তখন দেখবেন আপনার মন (mind) সেই উদ্দেশ্যের প্রতি সংযুক্ত হয়ে থাকবে।

যখনি আপনার মন খারাপ লাগবে আপনি নিজের উদ্দেশ্য, জীবনে কি করতে চান, জীবনে কি পেতে চান, সেগুলোর বিষয়ে ভাবতে হবে।

আর যখন আপনি এটা করবেন, তখন মনের ফোকাস আবার উদ্দেশ্যের প্রতি চলে আসবে এবং মনে উৎসাহ এর ভাব তৈরি কবে।

সমাধান নিয়ে ভাবুন 

দেখুন, আমাদের মন খারাপ তখন লাগে যখন আমাদের মনে বিভিন্ন ধরণের নেগেটিভ ভাব বা কথা চলতে থাকে।

হতে পারে পড়াশোনা নিয়ে, ভবিষ্যতে কি করবো, কেও খারাপ ব্যবহার করলো, কোনো কাজ সঠিক ভাবে হলোনা বা জীবনে যেটা চাইছি সেটা পাচ্ছিনা, এরকম অনেক কারণ থাকতে পারে মন ভালো না লাগার।

তবে, যদি আপনি এই সমস্যা গুলো নিয়ে ভাবতেই থাকেন তাহলে মন কোনোদিন ভালো লাগবেনা এবং জীবনে এগিয়ে যেতে অসমর্থ থাকবেন।

তাই, যেকোনোই সমস্যা হোক না কেন, নিজের মন কে একটাই প্রশ্ন করুন, “এই সমস্যার উচিত সমাধান কি হতে পারে ?

যখন আপনি নিজেকে এই প্রশ্ন করবেন, তখন আপনার মন কেবল সমাধানের ওপরে ফোকাস করতে শুরু করবে যার ফলে আপনি একটি উদ্দেশ্য পাবেন এবং মন হালকা হবে।

মনে রাখবেন সমস্যা প্রত্যেকের জীবনেই রয়েছে, কিন্তু সফল এবং খুশি সেই ব্যক্তি হতে পেরেছে যে সমস্যার সমাধান পাওয়া নিয়ে চিন্তা করেন।

যদি সমস্যা রয়েছে তাহলে তার একটি সমাধান অবশই রয়েছে এবং আমি অবশই সমাধান খুঁজতে পারবো“,

এই বাক্য নিজেকে প্রত্যেক দিন বলুন এবং দেখুন কিছু দিনেই আপনার self confidence কতটা বেড়ে যাবে এবং সমস্যা থাকলেও সেটা সমাধান করার কনফিডেন্স আপনার মধ্যে চলে আসবে এবং সমস্যা নিয়ে আপনার মন খারাপ হবেনা।

কিছুক্ষন হেটে আসুন 

যদি আপনার মন অনেক খারাপ লাগছে এবং তাড়াতাড়ি মন ভালো করার উপায় খুঁজছেন, তাহলে বাইরের থেকে একটু হেটে আসুন।

কমেও ১৫ মিনিট বাইরে হেটে আসতে পারলেও এতে আপনার energy level এবং mood ভালো হয়ে boost হবে।

এছাড়া, কিছুক্ষন হেটে আসার ফলে মন পরিষ্কার হবে এবং মন ফুরফুরে হয়ে যাবে।

হাটা এবং দৌড়ানোর প্রচুর health benefits রয়েছে যার জন্যে প্রত্যেক দিন কমেও ১৫ করে হলেও হাঁটুন।

এছাড়া, সাথে সাথে মন ভালো করে নেয়ার জন্য আপনি কোনো park, shopping mall বা কোনো শান্তির জায়গার থেকেও ঘুরে আসতে পারেন। 

একটি লম্বা bike ride কিন্তু সাথে সাথে মন খুশি করার দারুন উপায়।

লোকেদের সাহায্য করুন 

আমি জানি সবাই কিন্তু অন্যের সাহায্য করার মতো মন রাখতে পারেননা এবং এটা স্বাভাবিক।

তবে, জীবনে একদিন হলেও কোনো গরিবের সাহায্য করেই দেখুন না, দেখবেন মনে কতটা শান্তি পাবেন।

রাস্তায় কত রকমের নিরীহ প্রাণী গুলো রয়েছে যারা কষ্ট পাচ্ছে, একদিন তাদের জন্যই কিছু করে দেখুন।

যখন আমরা মন থেকে অন্যের সাহায্য করে থাকি, তখন আমাদের মধ্যে একটি positive feeling এবং energy তৈরি হয়ে থাকে।

আর এই positive energy বা feeling আমাদের মনে প্রচুর শান্তি এবং সন্তুষ্টির ভাব দিয়ে থাকে।

তাই, যদি আপনার মন ভালো না অনেক খারাপ লাগছে, তাহলে কোনো অসহায় ব্যক্তির জন্য কিছু করেই দেখুন না।

জোরে জোরে হাসুন 

বিভিন্ন studies থেকে পাওয়া গেছে যে জোরে জোরে হাসির অভিনয় (act of smiling) করলেও আমাদের mood ভালো হয়ে যায় এবং আমরা খুশি অনুভব করতে শুরু করি।

এর মধ্যে কারণ অবশই রয়েছে।

হাস্যময় (laughing) এর ফলে অনেক জরুরি কিছু ব্রেইন ক্যামিক্যাল (brain chemicals) মুক্তি পেয়ে থাকে যেগুলো আমাদের মন মেজাজ ভালো করার ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

হে, যদিওবা আপনার হাসার মন নেই তাও জোর করে করে হাসলেও ভালো কাজ হবে এবং আপনার মন ভালো লাগবে।

তাই, নকল হলেও জোর করে জোরে জোরে হাসুন এবং নিজের মন ভালো করে ফেলুন।

এছাড়া, হাসার জন্য আপনি কোনো হাসির সিনেমা দেখতে পারেন বা এমন কোনো বন্ধুর সাথে কথা বলুন যে আপনাকে হাসাতে পারবে বলে আপনি জানেন।

 

আমাদের শেষ কথা,,

যদি আপনি সব সময় খুশি থাকতে চান তাহলে নিজের মানসিকতা পসিটিভ (positive) রাখতে চেষ্টা করুন।

সব সময় নেগেটিভ কথা ভাবলে আপনার জীবন থেকে খুশি নাই হয়ে যেতে পারে।

তবে, মন খারাপ হলে আমরা কিছুটা সহজ সরল টিপ্স ফলো করে আবার মন ভালো করে ফেলতে পারি। 

যদি আপনার  মন ভালোনা এবং খুশি থাকার জন্য নিজেকে ভালো রাখার উপায় খুঁজছেন, তাহলে ওপরে বলা মন ভালো করার টিপস গুলো আপনার কাজে অবশই আসবে বলে আমি আশা করছি। 

তাহলে আশা করছি, মন খারাপ হলে কি করবেন এই প্রশ্নের উত্তর সঠিক ভাবে দিতে পেরেছি। 

আর্টিকেলের সাথে জড়িত কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ থাকলে, নিচে কমেন্ট করে অবশই জানিয়ে দিবেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link