প্রসেসর কি ? কিভাবে কাজ করে এবং অন্যান্য সম্পূর্ণ তথ্য

প্রসেসর কি
কম্পিউটার প্রসেসর (processor) মানে কি ?

প্রসেসর কি ? (What Is processor in Bangla), আজকে আমরা এই বিষয়ে জানার চেষ্টা করবো।

তবে, প্রসেসর বলতে কম্পিউটারের প্রসেসর এবং মোবাইলের প্রসেসর, দুটোই কিন্তু একি।

কারণ, দুটো ডিভাইস এর ক্ষেত্রেই কিন্তু processor এর কাজ সমান।

বর্তমানের এই আধুনিক প্রযুক্তির দুনিয়াতে সব থেকে অধিক ব্যবহার হওয়া device দুটোই হলো “computer” এবং “smartphone“.

এদিকে, computer এবং smartphone এর মধ্যে থাকা সব থেকে জরুরি ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো তাদের মধ্যে থাকা প্রসেসর (processor).

একটি ডিভাইস কতটা দ্রুত ভাবে কাজ করতে পারবে সেটা সেই ডিভাইস এর প্রসেসর এর কার্যক্ষমতা (processing power) এর ওপর নির্ভর করে থাকে।

আর তাই, আমরা যখনি একটি smartphone, laptop বা computer কেনার কথা ভাবি,

তখন device এর মধ্যে থাকা processor এর বিষয়ে সম্পূর্ণটা অবশই যাচাই করে নেই।

তবে, এমন কি কাজ রয়েছে এই প্রসেসর এর ? কেন একটি ভালো প্রসেসর এর গুরুত্ব এতটা বেশি ?

চিন্তা করবেননা,

আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনাদের সবটাই বুঝিয়ে বলবো।

আজকে আমরা জানবো,

  1. processor কি বা প্রসেসর কাকে বলে ?
  2. প্রসেসর কি কাজ করে বা এর কাজ কি ?
  3. কম্পিউটারে প্রসেসর কিভাবে কাজ করে ?
  4. Processor এর clock speed মানে কি ?
  5. Processor এর কোর (core) মানে কি ?
  6. প্রসেসর জেনারেশন বলতে কি বুঝায় ?
  7. প্রসেসর এর ইতিহাস কি ?
  8. Processor এর কিছু উদাহরণ 

তাহলে চলুন, প্রসেসর কাকে বলে সবচেয়ে প্রথমে আমরা এটাই জেনেনি।

প্রসেসর (processor) কি ? (What is a processor in Bangla)

Processor হলো এমন একটি “electronic chip / circuit / hardware” যেটা computer, mobile বা laptop প্রত্যেকটি device এর একটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

একটি ডিভাইস এর hardware এবং software এর মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন করে পরস্পরে সংযোগ করে এই প্রসেসর।

যখন একজন ইউসার ইনপুট ডিভাইস এর মাধ্যমে কম্পিউটারকে নির্দেশ দিয়ে থাকে,

তখন সেই নির্দেশ গ্রহণ করে নির্দেশ অনুযায়ী কিছু arithmetical, logical, input/output (I/O) এবং basic instructions গুলোকে সম্পাদন করে প্রসেসর।

এতে, ইউসার এর ভাষাতে দেওয়া নির্দেশ গুলো কম্পিউটার নিজের ভাষাতে অনুবাদ করে এবং দিয়ে দেওয়া কাজটি বুঝতে পারে।

তারপর, কাজ অনুযায়ী প্রত্যেকটি জরুরি হার্ডওয়্যার গুলোকে নির্দেশ দিয়ে থাকে এই প্রসেসর (processor).

আর এর ফলেই, আমরা একটি কম্পিউটার ডিভাইস এর থেকে সমাধান বা আউটপুট পেয়ে যেতে পারি।

তাই সোজা ভাবে বললে, প্রসেসর হলো একটি chip যেটার মূল উদ্দেশ্য হলো ইনপুট (input) গ্রহণ করে সঠিক আউটপুট (output) প্রদান করা।

আর, আউটপুট বা সমাধান প্রদান করার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় হার্ডওয়্যার গুলোকে কাজের নির্দেশ দেওয়া।

এখনের আধুনিক প্রসেসর গুলো একসাথে ট্রিলিয়ন এর সংখ্যায় গণনা করতে পারে।

তাই, আপনার কম্পিউটার বা মোবাইলের processor যতটা advanced এবং fast থাকবে, ততটাই দ্রুত ভাবে কাজ করবে আপনার ডিভাইস।

তাহলে আশা করছি, প্রসেসর বলতে কি বুঝায় (processor meaning in Bangla), বিষয়টা বুঝতে পেরেছেন।

Processor কাজ করে ?

একটি প্রসেসর কি কাজ করে, এবিষয়ে আপনারা ওপরেই হয়তো ভালো করে বুঝতে পেরেছেন।

প্রসেসর এর মূল কাজ হলো, “output” প্রদান করা।

যখন কম্পিউটার ডিভাইস এর মধ্যে ইউসার দ্বারা যেকোনো নির্দেশ দেওয়া হয়,

তখন, সেই নির্দেশ এর সাথে জড়িত programs, data, information ইত্যাদি গুলো ডিভাইস এর র্যাম মেমোরিতে অস্থায়ীভাবে জমা হয়ে যায়।

এবার, অস্থায়ীভাবে জমা হয়ে থাকা data এবং information গুলো গ্রহণ করে processor এবং তারপর সেগুলোকে গণনার মাধ্যমে প্রসেস করে।

এই কাজ কিন্তু নিমিষের মধ্যেই হয়ে যাচ্ছে এবং প্রসেসর এর কার্যক্ষমতা যত বেশি থাকবে, এই কাজ আরো দ্রুত গতিতে হবে।

এবার, ডাটা এবং তথ্য গুলোকে প্রসেস করার পর শেষে প্রয়োজনীয় হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার গুলোকে কাজের জন্য নির্দেশ দিয়ে থাকে প্রসেসর।

আর শেষে, হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার গুলোর সঠিক কাজের ফলে আমরা আমাদের দেওয়া ইনপুট গুলোর আউটপুট পেয়ে যাই।

তাহলে বুঝলেন তো, প্রসেসর এর কাজ কি ?

প্রসেসর কিভাবে কাজ করে ? (How Processor Works)

বাজারে বিভিন্ন আলাদা আলাদা কোম্পানির প্রসেসর রয়েছে।

এবং, প্রত্যেক আলাদা আলাদা কোম্পানি গুলোর চেষ্টা এটাই রয়েছে যে, কিভাবে তারা তাদের প্রসেসর গুলোকে আরো অধিক উন্নত করে নিতে পারবেন।

কম্পিউটারের প্রসেসর এর কথা বললে, বাজারে বর্তমানে “Intel” এবং “AMD” রাজত্ব করছে।

এবং, এই দুই কোম্পানির বিভিন্ন আলাদা আলাদা processor model রয়েছে, যেগুলোর দাম, কার্যক্ষমতা এবং মডেল আলাদা আলাদা।

তবে, মডেল ও কার্যক্ষমতা আলাদা আলাদা থাকলেও প্রত্যেক প্রসেসর এর কাজ করার প্রক্রিয়া কিন্তু এক।

এতটা architectural differences থাকা সত্ত্বেও প্রত্যেক processor কে মূলত ৩ টি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে কাজ করতে হয়।

সেগুলো হলো, 

  1. Fetch 
  2. Decode 
  3. Execute 

চলুন, এই প্রত্যেক প্রক্রিয়া গুলোর বিষয়ে জেনেনি।

Fetch

আমি আগেই বলেছি, কম্পিউটারে যেকোনো instruction / data process হওয়ার আগেই সেটা RAM মেমরিতে গিয়ে জমা হয়ে থাকে।

এবার, user এর instruction এর সাথে জড়িত program data, information ইত্যাদি গুলোকে যখন প্রসেসর কোর (processor core) সেই র্যাম মেমরি থেকে সংগ্রহ বা পুনরুদ্ধার করে,

তখন সেই প্রক্রিয়াটিকেই বলা হয় “fetch“.

Fetch করার জন্য যেটুকু সময় লেগে থাকে, সেই সময়টিকে বলা হয় “fetch time” বা “fetch cycle“.

আর এই fetch time বা fetch cycle এর পরিমান clock ticks এর মাধ্যমে মাপা হয়।

Decode

একবার instructions এবং data গুলো fetch হয়ে যাওয়ার পর, প্রসেসর এর দ্বিতীয় প্রক্রিয়া হলো সেগুলোকে decode করা।

মানে, এই প্রক্রিয়াতে এইটা খুঁজে বের করা হয় যে, গ্রহণ বা লোড করা নির্দেশ (instruction / data) গুলোর মানে কি এবং কেন এই instruction দেওয়া হয়েছে।

সোজা ভাবে বললে, প্রত্যেকটি instruction গুলোতে বিভিন্ন আলাদা আলাদা ভাগ রয়েছে।

এবং প্রত্যেকটি ভাগ যেমন, “arithmetic” ইত্যাদি গুলোকে processor core এর বুঝতে হবে।

আবার, opcode (operation code) বলেও একটি ভাগ রয়েছে, যেটা প্রসেসর কে বলে থাকে যে সেই instruction টি ব্যবহার করে তাকে কি কাজ করতে হবে।

Execute

কারণ, আগের প্রক্রিয়া যেটাকে “decode” বলা হয় সেখানেই processor বুঝে যায় যে তাকে কি করতে হবে।

তাই, এই প্রক্রিয়াতে প্রসেসর ভালো করে জানে যে তাকে কি কাজ করতে হবে এবং সেই কাজটিকে সম্পন্ন করার জন্য প্রসেসর কাজ শুরু করে।

কম্পিউটারের যেকোনো operation বা instruction টিকে সম্পূর্ণ করার ক্ষেত্রে এই প্রক্রিয়াটি শেষ প্রক্রিয়া বলা যেতে পারে।

ওপরের প্রক্রিয়াতে decode হয়ে যাওয়া instruction গুলোকে বুঝে সেগুলোকে সম্পূর্ণ করার জন্য, results গুলোকে CPU registrar এর মধ্যে write করা হয়।

এর পর, প্রয়োজন হিসেবে জরুরি হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার গুলোর কাছে কাজ করার নির্দেশ চলে যায়।

আর যার ফল, আমরা আউটপুট / সমাধান পেয়ে থাকি।

আর এভাবেই, একটি processor / CPU যেকোনো operation / instruction গুলোকে সম্পূর্ণ করে আউটপুট প্রদান করে।

Processor core মানে কি ?

Processor core হলো একটি processing unit যেটা instructions গুলোকে read করে এবং সেগুলোকে সম্পাদন করে।

একটি processor এর মধ্যে কোর (core) যত বেশি, তার কার্যক্ষমতা এবং শক্তি ততটাই বেশি থাকবে।

সোজা ভাবে বললে core এর মাধ্যমে আমরা একটি processor এর ক্ষমতা (capacity) কত, সেটা বুঝতে পারি।

একটি সাধারণ processor এর মধ্যে single core থাকতে পারে। মানে, সেটা কেবল একটি single CPU হয়ে থাকে।

আবার, dual core processor গুলো যেকোনো single core processor এর তুলনায় অধিক শক্তিশালী হবে।

কারণ, dual core processor গুলোতে দুটো সমান সমান frequency র দুটো আলাদা আলাদা processor circuit থাকছে।

তাই, signal core এর তুলনায় dual core processor, দুগুণ শক্তিশালী এবং তাই দুগুণ দ্রুত ভাবে কাজ করতে পারবে।

বর্তমান সময়ে বাজারে বিভিন্ন আলাদা আলাদা core এর processor রয়েছে।

যেমন,

  1. Dual core processor – এখানে দুটো কোর রয়েছে।
  2. Quad core processor – এখানে রয়েছে ৪ টি কোর।
  3. Hexa core processor – এখানে পাবেন ৬ টি কোর এর শক্তি।
  4. Octa core processor – ৮ টি কোর রয়েছে এখানে।
  5. Deca core processor – ১০ টি কোর রয়েছে এই প্রসেসরে।

যেই processor এর মধ্যে যত বেশি core থাকছে, সেই প্রসেসর ততটাই অধিক দ্রুত এবং সহজ ভাবে multitasking করতে পারবে।

কিছু মাল্টিকোর (multi-core) প্রসেসর এর উদাহরণ হলো –

নিচে আমরা কিছু multi-core processor এর উদাহরণ দেখেনিব।

  • AMD Ryzen 5 3500X – 6 cores / 4.1 GHz frequency
  • AMD Ryzen 3 3200G – 4 Cores up to 4 GHz frequency
  • Intel Core i3-9100F 9th Gen Desktop Processor – 4 Core Up to 4.2 GHz frequency
  • Intel Core i7-9700F Processor – 8 Cores Up to 4.70 GHz frequency

মনে রাখবেন, প্রসেসর গুলোতে যতটা বেশি core এবং frequency থাকবে, তাদের দাম ও কিন্তু তুলনামূলক ভাবে অধিক থাকবে।

Processor clock speed মানে কি ?

এমনিতে processor clock speed কে, clock rate বা processor বলেও বলা যেতে পারে।

কম্পিউটারে থাকা microprocessor গুলো প্রত্যেকটি instruction গুলোকে execute করে লাগে।

আর, clock speed কে সেই গতি (speed) বা দ্রুততা দিয়ে ধরা হয় যেই দ্রুততার microprocessor গুলো instruction গুলোকে কার্যকর (execute) করে থাকে।

প্রত্যেকটি instruction গুলোকে কার্যকর বা এক্সেকিউট করার জন্য, CPU এর প্রয়োজন হয়ে থাকে একটি fixed number of clock ticks বা cycles এর।

আর তাই, clock rate যতটাই বেশি ফাস্ট থাকছে, ততটাই fast আপনার CPU কাজ করবে এবং instructions গুলোকে অধিক তাড়াতাড়ি execute করতে পারবে।

Clock speed কে দুধরণে মাপা হয়। 

  1. MHz – 1 million cycles per second.
  2. GHz – 1 thousand million cycles per second.

আপনার সিপিইউ এর দ্রুততা (speed) যতটাই বেশি থাকবে, আপনার কম্পিউটার ততটাই বেশি ফাস্ট এবং দারু ভাবে কাজ করবে।

এমনিতে কম্পিউটারের অন্যান্য components যেমন, RAM, hard drive, motherboard, processor-core count ইত্যাদি এগুলোর ওপরেও কম্পিউটারের performance নির্ভর করে থাকে।

CPU এর এই clock speed এর মাধ্যমে এটা বুঝা সম্ভব যে, সে প্রত্যেক সেকেন্ডে (1 second) কতটুকু গণনা (calculations) করতে পারবে।

যতটা বেশি speed থাকছে, ততটাই বেশি calculations করতে পারবে আপনার CPU, আর যার ফলে কম্পিউটার অধিক দ্রুত ভাবে perform করবে।

বাজারে, Intel এবং AMD র মতো জনপ্রিয় computer processor রয়েছে যেগুলো প্রায় একি রকমের processor বাজারে নিয়ে এসেছে।

এবং, প্রত্যেকটি processor এর core count এবং তাদের clock speed অবশই বলে দেওয়া থাকে, যাতে আমরা সেই processor এর কার্যক্ষমতার বিষয়ে জেনে নিতে পারি।

 

আমাদের শেষ কথা,

তাহলে বন্ধুরা, আশা করছি আপনারা কম্পিউটারের প্রসেসর এর বিষয়ে সবটা বুঝতে পেরেছেন।

প্রসেসর কি” বা “প্রসেসর কাকে বলে“, (what is a processor in Bangla) বিষয়টা নিয়ে যদি আপনাদের মনে কোনো ধরণের প্রশ্ন বা পরামর্শ রয়েছে,

তাহলে অবশই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

তাছাড়া, আজকের আমাদের আর্টিকেল “about processor in Bengali” যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে,

তাহলে আর্টিকেলটি অবশই শেয়ার করবেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link