ফ্রিল্যান্সিং কি ? ( what is freelancing in Bangla ) | কিভাবে ইনকাম করবেন ?

ফ্রিল্যান্সিং কি ? অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে ? ( what is freelancing in Bangla ), আজ প্রত্যেকেই এই বিষয়ে জেনেনিতে চাইছেন।

ফ্রিল্যান্সিং কি
About freelancing in Bengali

কেননা, ফ্রিল্যান্সিং হলো এমন একটি career যার মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে প্রচুর লোকেরা প্রচুর টাকা অনলাইনে আয় করে নিচ্ছেন।

এই অনলাইন টাকা ইনকাম করার ক্যারিয়ার এর বিষয়ে অধিক জানার জন্যই আজ লোকেরা ফ্রিল্যান্সিং এর বিষয়ে ইন্টারনেটে প্রচুর সার্চ করে থাকেন।

তবে বলে দেই, যদি আপনি একজন ছাত্র (student), মহিলা, বয়স্ক ব্যক্তি, চাকরি করা ব্যক্তি বা জেকেও যে ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চাইছেন, তাহলে আপনিও Freelancing অবশই করতে পারবেন।

এখনের সময়ে প্রত্যেকেই চাকরির বাইরে extra income বা part-time income করার কিছু না কিছু online মাধ্যম খুঁজে থাকেন।

এক্ষেত্রে, আপনার জন্য ফ্রিল্যান্সিং (Freelancing) একটি দারুন অনলাইন ইনকাম (online income) এর উপায় প্রমাণিত হতে পারে।

প্রচুর লোকেরা রয়েছেন যারা ঘরে বসে full-time freelancing করে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করছেন।

তবে, আপনিও যদি ফ্রিল্যান্সিং এর বিষয়ে (about freelancing in Bengali) সম্পূর্ণ তথ্য বাংলাতে জেনেনিতে চাইছেন,

তাহলে এই আর্টিকেলে আপনারা ফ্রিল্যান্সিং বলতে কি বোঝায় এবং এর সাথে জড়িত প্রত্যেকটি বিষয়ে জেনেনিতে পারবেন।

Post Contents

ফ্রিল্যান্সিং কি ? ( What is freelancing in Bangla )

Freelancing মানে হলো কাজের সেই প্রক্রিয়া যেখানে আপনি স্বাধীন এবং স্বতন্ত্র ভাবে নিজের হিসেবে কাজ করবেন।

ফ্রিল্যান্সিং হলো কাজ করার সেই মাধ্যম যেখানে আপনি যেকোনো একটি company, organization, group বা firm এর সাথে সরাসরি ও দীর্ঘকালীন ভাবে সংযুক্ত থাকবেননা।

তবে, এখানে আপনি বিভিন্ন company, organization বা ব্যক্তির জন্য চুক্তি (contract) হিসেবে কাজ করে থাকেন এবং কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পর আপনাকে সেই কাজের জন্য টাকা দেওয়া হয়।

যেই ব্যক্তি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করে থাকেন তাকে freelancer বলা হয়।

সোজা ভাবে বললে, একজন ফ্রিল্যান্সার হলো একজন self-employed person যে নিজেই নিজের মালিক হয়ে clients দের জন্য কাজ করে থাকেন।

একজন freelancer নিজের skills, experience এবং knowledge এর ব্যবহার করে তার clients এর জন্য কাজ করে।

এক্ষেত্রে একটি কোম্পানি, ব্যক্তি, সংগঠন জেকেও আপনার ক্লায়েন্ট (client) হতে পারে এবং আপনাকে কাজ দিতে পারে।

তাহলে বুঝলেন তো ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে ?

এটা এমন একটি পেশা (profession) যেখানে আপনি চুক্তি হিসেবে অন্যান্য ব্যক্তিদের (clients) জন্য কাজ করবেন এবং কাজ সম্পূর্ণ করার একটি নির্ধারিত সময় থাকবে।

প্রত্যেক কাজ করে দেওয়ার বিপরীতে আপনি কত টাকা নিবেন সেটার সিদ্ধান্ত আপনাকে আগের থেকেই নিতে হয়।

এছাড়া, ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ আপনারা নিজের ঘরে বসে বা যেকোনো জায়গার থেকে করতে পারবেন।

আপনার কাছে একটি laptop বা computer এবং internet connection থাকলেই এই কাজ আপনি করতে পারবেন।

অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং কাকে বলে ?

ফ্রিল্যান্সিং মানে কি এই বিষয়ে হয়তো আপনারা ভালো করেই বুঝতে পেরেছেন।

চলুন এখন অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং মানে কি সেটা জেনেনি।

আগেকার সময়ে যখন ইন্টারনেটের প্রচলন এতটা ছিলোনা তখন Freelancing করাটা অনেক কষ্টের বিষয় ছিল।

কারণ, তখনের সময়ে কাজ খুজার জন্য freelancers রা offline মাধ্যম গুলোর ব্যবহার করতেন।

মানে, সেই সময় কোম্পানি গুলোর কাছে গিয়ে গিয়ে কাজ বা প্রজেক্টস (projects) গুলো খুঁজতে হতো।

এক্ষেত্রে, তাদের সাংঘাতিক পরিশ্রম হওয়ার সাথে সাথে প্রচুর সময় নষ্ট হতো।

কিন্তু এখনের আধুনিক সময়ে ইন্টারনেট হলো একটি দ্রুত এবং দারুন যোগাযোগের মাধ্যম।

ইন্টারনেটে এরকম প্রচুর freelancing websites রয়েছে যেগুলোতে নিজের একটি একাউন্ট তৈরি করে সহজেই ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলো খুঁজতে ও করতে পারবেন।

আপনি এই অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং সাইট গুলোর মাধ্যমে নিজের ঘরে বসে বিশ্বের যেকোনো জায়গার থেকে কাজ পেতে পারবেন।

Online freelancing website গুলোর লাভ প্রচুর রয়েছে –

  • বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশ-বিদেশ থেকে clients এবং freelancers পরস্পরে যোগাযোগ করতে পারবেন।
  • নিজের কাজ, জ্ঞান, অভিজ্ঞতা ইত্যাদির বিষয়ে লোকেদের জানাতে পারবেন যার ফলে অধিক কাজ পাওয়ার সুযোগ হয়ে দাঁড়াবে।
  • আপনি যেই বিষয়ের একজন বিশেষজ্ঞ বা নিজের দক্ষতা হিসেবে এখানে প্রচুর কাজ নিয়মিত ভাবে পাওয়ার সুযোগ প্রচুর থাকে।
  • কাজ নেওয়ার বা করার আগেই কাজটি করতে কত টাকা লাগবে সেটা ঠিক করতে পারবেন।
  • কাজ খুজার থেকে শুরু করে কাজ জমা দেওয়া এবং পেমেন্ট (payment) সবটাই অনলাইনে অনেক সুরক্ষিত ভাবে করা হয়।

যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ অনলাইনে করে থাকেন তাহলে আপনাকে কোথাও যেতে হবেনা এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে ঘরে বসেই সব কাজ করতে পারবেন।

একজন ফ্রিল্যান্সার মাসে কত টাকা ইনকাম করে ?

দেখুন ফ্রিল্যান্সিং করে কত টাকা আয় করা যায় এই প্রশ্নের উত্তর অনেক আলাদা আলাদা রকমের হতে পারে।

কারণ, ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম কত হবে সেটা সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করছে আপনি কত বেশি কাজ পাচ্ছেন এবং সেগুলোকে সঠিক ভাবে সম্পূর্ণ করছেন।

আলাদা আলাদা কাজের জন্য আলাদা আলাদা পরিমানে টাকা দেওয়া হয়।

তবে, কমেও প্রত্যেক সাধারণ কাজের জন্যে $5 থেকে $10 সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

অনেক লোকেরা পার্ট-টাইম ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা ইনকাম করছে।

আবার অনেকেই, ফুল-টাইম ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা যায় করছেন।

কিন্তু অনেক এরকম freelancer রয়েছেন যারা নতুন করে কাজ শুরু করেছেন এবং এখনো অধিক পরিমানে কাজ পাচ্ছেননা যার ফলে তাদের ইনকাম প্রচুর কম বা একেবারেই নেই।

তবে, যদি এই প্রশ্ন করা হয় যে freelancing করে ভালো পরিমানে অনলাইন টাকা আয় করা যাবে কি না, তাহলে এর উত্তর হবে অবশই করতে পারবেন এবং প্রচুর লোকেরা করছেন।

আর যদি আপনার মধ্যে এমন কোনো বিশেষ দক্ষতা (skills) রয়েছে যার দ্বারা আপনি অন্যান্য ব্যক্তিদের কাজ গুলো করে তাদের সাহায্য করতে পারবেন,

তাহলে অবশই আপনিও freelancing শুরু করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য কি কি লাগবে ?

যদি আপনিও ফ্রিল্যান্সিং করার কথা ভাবছেন তাহলে আপনি কেবল কিছু সময়ের মধ্যে এই কাজ শুরু করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আপনাকে অনেক সাধারণ (basic) তবে জরুরি জিনিসের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

  • একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থাকতে হবে।
  • যিহেতু অনলাইনে কাজ খুঁজতে হবে তাই ইন্টারনেট থাকাটা জরুরি।
  • আপনাকে কিছুটা সময় দিতে হবে কাজ করার জন্য।
  • আপনার মধ্যে একটি বিশেষ দক্ষতা (skill) থাকতে হবে যেটার সাথে জড়িত কাজ খুঁজতে পারবেন।

এগুলো হলো মূল জিনিস যেগুলোর প্রয়োজন প্রত্যেকের হয়ে থাকে যারা ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করেন।

তবে, এগুলো ছাড়াও আপনাকে অন্যান্য কিছু বিশেষ আপনার ধ্যান রাখতে হবে।

যেমন,

  • Freelancing শুরু করার আগে আপনাকে এর বিষয়ে সম্পূর্ণটা জেনে নিতে হবে।
  • কাজ করার জন্য নিজেকে তৈরি করতে হবে।
  • আপনার মধ্যে কোন বিশেষ skills রয়েছে সেটা নিয়ে ভাবতে হবে।
  • আপনার জানা কাজ কি অন্যদের কাজে আসবে ? সেটা ভাবতে হবে
  • আপনি কোন কাজে এক্সপার্ট (expert) এবং কোন কাজ নির্ভুল ভাবে করতে পারবেন সেটা ভাবুন।
  • Freelancing করার জন্য time management অবশই শিখতে হবে।

ওপরে বলা এই প্রত্যেকটি point গুলো নিয়ে আপনারা ভালো করে বিচার বিবেচনা করে দেখলে ফ্রিল্যান্সিং অনেক ভালো করে ও সঠিক ভাবে শুরু করতে পারবেন।

Freelancing এর কাজ জেকেও নতুন করে শুরু করে অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন। এর জন্য কোনো experience এর প্রয়োজন নেই।

তবে, আপনি যেই কাজ গুলো clients দের জন্য করবেন সেই কাজে একজন এক্সপার্ট আপনাকে অবশই হতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম কিভাবে করবেন ? (How to Earn Money As a Freelancer)

ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাকে শুরু থেকে কিছু স্টেপস (steps) গুলোকে সম্পূর্ণ করতে হবে।

স্টেপ ১. নিজের একটি স্কিল (skill) খুজুন

আপনি কোন কাজটি অন্যদের জন্য করতে পারবেন সেটা প্রথমেই ভাবতে হবে। ফ্রিল্যান্সিং করা মানেই হলো অন্যান্য ব্যক্তিদের জন্য কাজ করে তাদের থেকে টাকা আদায় করা।

তাই, আপনি কোন কাজ করতে পছন্দ করেন ? কোন কাজের প্রচুর অভিজ্ঞতা আপনার আছে ? এই বিষয়ে ভেবে নিজের একটি skill খুঁজতে হবে।

স্টেপ ২. Freelancing website এর একাউন্ট

এখন যখন আপনি সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছেন যে আপনি কোন কাজটি একজন ফ্রীল্যান্সার হিসেবে করবেন, তাই এবার আপনাকে একটি বা একাধিক ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের মধ্যে গিয়ে নিজের একাউন্ট তৈরি করতে হবে।

স্টেপ ৩. নিজের প্রোফাইল এবং পোর্টফোলিও তৈরি

Freelancing account তৈরি করার পর আপনাকে নিজের profile এবং portfolio ভালো করে update ও edit করতে হবে।

আপনি নিজের অভিজ্ঞতা, দক্ষতা (skills) আগে করা কাজ এবং নিজের বিষয়ে লিখুন। এতে, যারা কাজ দিবেন (clients) তারা ভালো করে আপনার বিষয়ে জেনেনিতে পারবেন।

স্টেপ ৪. কাজ খুজুন এবং এপ্লাই করুন

Profile update হয়ে যাওয়ার পর, আপনাকে সেই প্রত্যেকটি কাজের বিষয়ে বলা বা দেখানো হবে যেগুলো আপনার skills এর সাথে রিলেটেড।

আপনি প্রচুর কাজ (projects) গুলো দেখতে পারবেন যেগুলো clients রা পাবলিশ করেছেন।

এবার সরাসরি আপনি নিজের পছন্দ হিসেবে projects গুলোতে ক্লিক করে কাজ করার জন্য এপলাই করতে পারবেন।

অনেক ক্ষেত্রে আপনাকে projects গুলোর ওপরে bidding করতে হবে।

মানে, আপনি সেই project টি কত টাকায় বা কত কম টাকায় করে দিতে পারবেন সেটা বলতে হবে bidding এর মাধ্যমে।

স্টেপ ৫. অপেক্ষা করুন

Projects এর ওপরে click করে apply করলেই বা price bidding করেই আপনারা কাজটি পাবেননা। কারণ, প্রত্যেকটি projects এর ওপরে অনেক freelancers রা bidding করে থাকে।

তাই, আপনাকে অল্প অপেক্ষা করতে হবে এবং দেখতে হবে client টি আপনাকে কাজটি দিবে কি না।

যেকোনো project করানোর আগে clients রা freelancers দের সম্পূর্ণ profile এবং তাদের অভিজ্ঞতা অবশই দেখেন।

স্টেপ ৬. কাজ সঠিক সময়ে করতে হবে

যদি আপনাকে project দিয়ে দেওয়া হয় তাহলে সঠিক সময়ে আপনাকে কাজটি করে জমা দিতে হবে। আপনি যদি কাজটি সঠিক ভাবে এবং সঠিক সময়ে সম্পূর্ণ করে জমা দিয়ে থাকেন, তাহলে আপনাকে আপনার payment দিয়ে দেওয়া হবে।

Project এর বিপরীতে করা payment আপনাকে সেই freelancing ওয়েবসাইটের মাধ্যমেই করা হবে।

তাহলে বুঝলেন তো ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা ইনকাম কিভাবে করবেন।

সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইট গুলো কি কি ?

অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আপনাকে কিছু সেরা সেরা ফ্রিল্যান্সিং সাইট গুলোর সাহায্য নিতে হবে।

এই, সাইট গুলোতে গিয়ে আপনারা একটি একাউন্ট তৈরি করে Freelancing work খুঁজতে পারবেন।

এছাড়াও আরো প্রচুর freelancing websites রয়েছে যদিও এই সাইট গুলো সেরা freelancing websites হিসেবে প্রচুর জনপ্রিয়।

আমার হিসেবে, আপনি যদি নতুন করে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শুরু করতে চলেছেন, তাহলে প্রথমে কেবল একটি ওয়েবসাইটে একাউন্ট তৈরি করে কাজ শুরু করুন।

ধীরে ধীরে যখন আপনি ফ্রিল্যান্সিং কাজটি বুঝতে থাকবেন এবং এই কাজে একজন অভিজ্ঞতা রাখা ব্যক্তি হয়ে দাঁড়াবেন, তখন একাধিক ওয়েবসাইটে একাউন্ট তৈরি করে কাজ করতে পারবেন।

অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট কিভাবে তৈরি করবেন ?

একটি অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং একাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনাকে প্রথমে এটি freelancing marketplace বা website ভিজিট করতে হবে।

ওপরে যেগুলো সেরা freelancing marketplace গুলোর নাম আমি বললাম সেগুলোতে গেলেই হবে।

ওয়েবসাইটে ভিজিট করার পর আপনারা sign up, register as freelancer, find work, earn money freelancing ইত্যাদি এই ধরণের কিছু link দেখতে পাবেন।

এই link এর মধ্যে ক্লিক করে নিজের basic details এবং contact details গুলো দিয়ে সহজেই একটি freelancing account তৈরি করতে পারবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ কি কি ?

যখন বলা হয় ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ নিয়ে তখন আমাদের মনে এটাই প্রশ্ন চলে আসে যে ফ্রিল্যান্সিং কাজ বলতে কি বুঝায়।

ফ্রিল্যান্সিং কাজ বলতে সেই প্রত্যেক কাজ গুলো হতে পারে যেগুলো client রা freelancers দের দ্বারা করিয়ে থাকে।

আর, হাজার হাজার রকমের কাজ রয়েছে যেগুলো এই online freelancing site গুলোর মাধ্যমে করানো হয়।

যেমন,

  • ওয়েব ডিজাইনিং
  • ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট
  • গ্রাফিক্স ডিজাইনিং
  • লোগো ডিজাইন
  • কনটেন্ট রাইটিং
  • ভিডিও এডিটিং
  • App development
  • ডাটা এন্ট্রি
  • অ্যানিমেশন
  • সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • SEO
  • Voice over artist
  • Coding (CSS / JavaScript developer)
  • Promotion work

এরকম হাজার হাজার ছোট বড় প্রত্যেক ধরণের কাজ গুলো freelancers দের দ্বারা clients রা করিয়ে থাকেন।

Freelancing করার লাভ ও সুবিধা গুলো কি কি ?

চলুন এখন আমরা সরাসরি জেনেনি Freelancing এর লাভ ও সুবিধা গুলো কি কি।

  • Freelancing করে ঘরে বসে অনলাইন ইনকাম সম্ভব।
  • চাকরির পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং করে extra income করতে পারবেন।
  • কেবল চাকরির ওপরেই আপনার নির্ভর করে থাকতে হবেনা।
  • কাজের অভিজ্ঞতা বাড়তে থাকবে।
  • কেবল একটি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এর মাধ্যমে কাজ করতে পারবেন।
  • যেকোনো জায়গার থেকে নিজের ইচ্ছে হিসেবে কাজ করতে পারবেন।
  • ফুল-টাইম ফ্রিল্যান্সিং করলে আপনার ওপরে কোনো boss থাকবেনা। নিজেই নিজের মালিক হয়ে কাজ করতে পারবেন।
  • অধিক কাজ (projects) গুলোকে করতে পারলে অধিক ইনকাম হবে।
  • এখানে নিজের skills এর মাধ্যমে ইনকাম করছেন।

আমাদের শেষ কথা,,

তাহলে বন্ধুরা, আশা করছি আপনারা ফ্রিল্যান্সিং কি (What is freelancing in Bangla) বিষয়টা সম্পূর্ণ ভালো করে বুঝতেই পেরেছেন।

ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করাটা প্রত্যেকের জন্য খুবেক্টা সোজা কাজ না।

কারণ, এই মাধ্যমে কাজ আপনাকে অনলাইনে খুঁজতে হয় যার জন্য কাজের ভালো অভিজ্ঞতা এবং পজিটিভ রিভিউ এর প্রয়োজন।

আমরা আগে কি কি কাজ করেছি সেগুলো দেখেই ক্লায়েন্টস রা আমাদের কাজ দিয়ে থাকে।

তাই, freelancing এর career তৈরি করার জন্য আপনাকে প্রথমে প্রচুর কষ্ট করতে হবে এবং সময় দিতে হবে।

একবার, নিজেকে জনপ্রিয় ফ্রীল্যান্সার হিসেবে জনপ্রিয় করতে পারলে কাজের অভাব থাকবেনা এবং ইনকাম প্রচুর হবে।

2 thoughts on “ফ্রিল্যান্সিং কি ? ( what is freelancing in Bangla ) | কিভাবে ইনকাম করবেন ?”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error:
Scroll to Top
Copy link