কিভাবে রিল ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম করা যায়? রিল থেকে ইনকাম 

রিল ভিডিও থেকে ইনকাম: অনলাইন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলির জনপ্রিয়তা এবং ব্যবহার দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং সত্যি বলতে, নিজের সোশ্যাল মিডিয়া পেজ গুলির থেকে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সুযোগ ও সুবিধা গুলির কারণেই বেশিরভাগ কনটেন্ট ক্রিয়েটররা তাদের পেজ গুলিতে নিয়মিত কনটেন্ট পাবলিশ করার মোটিভেশনও পাচ্ছেন। 

রিল ভিডিও থেকে ইনকাম
How To Earn Money With Reels? Bangla Guide

বর্তমান সময়ে, ইন্টারনেটে এমন এক বিশেষ ধরণের শর্ট ভিডিও গুলি বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করছে, যেগুলি বেশিরভাগ ক্ষেত্রে প্রায় ২০ থেকে ৬০ সেকেন্ডের মধ্যে রাখা হয়। 

এই ধরণের ভিডিও গুলি পাবলিশ করার অপসন, YouTube, Instagram, Facebook, TikTok, ইত্যাদি প্রায় প্রত্যেক জনপ্রিয় ও বিখ্যাত সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলিতেই আপনারা পাবেন। কয়েক সেকেন্ডের এই ছোট ছোট এবং আকর্ষণীয় ভিডিও গুলি সাধারণত “Reels Video” (রিল ভিডিও) নামে পরিচিত। 

এখন আমাদের মধ্যে অনেকেরই মনে, রিল ভিডিও বানিয়ে টাকা আয় করার বিষয়টা কিন্তু অবশই চলে আসতে পারে।

কিভাবে রিল ভিডিও থেকে ইনকাম করা যায় বা রিল ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করার উপায় গুলি কি? এই ধরণের প্রশ্ন অনেকেই ইন্টারনেটে গিয়ে সার্চ করেন। 

তবে যদি আপনিও রিল বানিয়ে ইনকাম করার উপায় গুলি জেনেনিতে চাইছেন, বা এক্ষেত্রে কি কি করতে হবে সেটা জানতে চাইছেন, তাহলে আমাদের আজকের আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন। 

অবশই পড়ুন:

আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমরা, কিভাবে রিল ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম করা যায় সেই বিষয়ে আপনাদের বিস্তারিত বলবো।  

কোথায় রিল ভিডিও থেকে ইনকাম করার সুযোগ পাবেন?

আমার হিসেবে রিল বানিয়ে টাকা আয় করার সব থেকে সেরা এবং কার্যকর সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মটি হলো, “ইনস্টাগ্রাম”।

Instagram Reels, হলো Instagram-এর একটি feature, যার দ্বারা একজন ইউজার হিসেবে আপনি ছোট ছোট শর্ট রিল ভিডিও গুলি দেখতে এবং তৈরি ও পাবলিশ করতে পারবেন। এই ধরণের ভিডিও গুলিতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আকর্ষণীয় এবং ট্রেন্ডিং ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক বা গান গুলি লাগিয়ে ভিডিও তৈরি ও পাবলিশ করা হয়। 

এবার, ইন্সটাগ্রামের মধ্যে বিভিন্ন উপায় রয়েছে যেগুলির দ্বারা ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করা ক্রিয়েটররা তাদের কন্টেন্ট থেকে টাকা ইনকাম করতে পারেন। এগুলির মধ্যে কিছু হলো, ইন্সটাগ্রাম পার্টনার প্রোগ্রাম, ব্র্যান্ড কন্টেন্ট পার্টনারশিপ এবং আইজিটিভি বিজ্ঞাপন (IGTV ads)। 

এছাড়া, affiliate marketing-এর মতো ইনডাইরেক্ট উপায় গুলি ব্যবহার করেও, Instagram থেকে ইনকাম করা যায়। এমনিতে, YouTube এবং Tik-Tok-এর মতো online platform গুলিতেও শর্ট ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম করার নানান উপায় আছে।

তবে যিহেতু আমরা রিল বানিয়ে টাকা আয় করার বিষয়টা নিয়ে আলোচনা করছি, তাই Instagram-কে মাথায় রেখে আমরা আমাদের আজকের আর্টিকেলটি লিখবো। 

Instagram Reels থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যাবে?

Instagram Reels বানিয়ে অনলাইন মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার নানান উপায় গুলি রয়েছে।

যদি আপনিও ইনস্টাগ্রাম এর মধ্যে রিল ভিডিও আপলোড করে টাকা ইনকাম করার বিষয়টা ভাবছেন, তাহলে অবশই ইনস্টাগ্রাম রিল বানিয়ে অর্থ উপার্জনের এই ৪টি সেরা এবং কার্যকর উপায় গুলি অবশই জেনে রাখুন।  

১. Instagram Ads (বিজ্ঞাপন):

Instagram reels থেকে ইনকাম করার সব থেকে সেরা উপায় গুলির মধ্যে একটি হলো, Instagram ads/বিজ্ঞাপন।

ইনস্টাগ্রাম এর মধ্যে রিল ভিডিও তৈরি এবং পাবলিশ করা ছোট-বড় প্রত্যেক ক্রিয়েটরদের জন্য ইনকামের এই উপায়টি একটি গেম চেঞ্জার হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। 

রিল বানিয়ে অনেক তাড়াতাড়ি এবং সহজে টাকা ইনকাম করার এই উপায়টিতে আপনাকে একটি ৩০ সেকেন্ডের রিল ভিডিও তৈরি করতে হয় যেখানে আপনি আপনার পণ্য বা পরিষেবা গুলির বিষয়ে বলতে পারবেন।

অবশই, রিল ভিডিওর মধ্যে একটি “call to action button (CTA)” দেওয়া থাকবে। যত অধিক লোকেরা CTA-এর দ্বারা আপনার পণ্য গুলি কিনবেন, আপনি ততটাই অধিক টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন। 

ইনস্টাগ্রাম এর মধ্যে থাকা আপনার ফলোয়ার্সদের রুচি, পছন্দ এবং লোকেশন এর উপর নির্ভর করে আপনি আপনার শ্রোতাদের জন্য রিলেটেড পণ্য/বিজ্ঞাপন গুলি টার্গেট করতে পারবেন।    

২. Branded Content Partnerships:

কি এটা? কিভাবে ইনকাম করা যাবে? দেখুন, বর্তমান সময়ে হাজার হাজার কোম্পানি, ব্যবসা, ব্র্যান্ড এবং পণ্য গুলি রয়েছে।

এক্ষেত্রে, কোম্পানি বা ব্র্যান্ড গুলি তাদের পণ্য বা পরিষেবা গুলি আমাদের রিল ভিডিও গুলিতে দেখানো বা প্রচার করার জন্য আমাদের টাকা দিয়ে থাকে।

এই মাধ্যমে ইনকাম করার জন্য আপনাকে মূলত ৩টি বিশেষ বিষয়ে নজর দিতে হবে।

একটি ভালো ফলোয়ার বসে তৈরি করা, ব্র্যান্ড বা কোম্পানি গুলির সাথে রিলেটেড কনটেন্ট টার্গেট করে ভিডিও বানানো এবং নিয়মিত নানান কোম্পানি বা ব্র্যান্ডদের সাথে যোগাযোগ রাখা। 

৩. Affiliate Marketing:

যখন আপনার একটি বড় ইউসার বেস বা ফলোয়ার বেস তৈরি হয়ে যাবে, তখন আপনি affiliate marketing-এর মতো উপায় গুলি ব্যবহার করেও নিজের রিল ভিডিও থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

এক্ষেত্রে, আপনার শ্রোতারা/ফলোয়ার্সরা কি ধরণের কনটেন্ট/ভিডিও পছন্দ করেন সেই বিষয়টির উপর নির্ভর করে আপনাকে রিল ভিডিও তৈরি করতে হয়।

এবার, ভিডিওর মধ্যে রিলেটেড পণ্য/পরিষেবা গুলি প্রচার করে সেগুলির এফিলিয়েট লিংক ভিডিও ডেস্ক্রিপশনে দিয়ে দিতে হয়। 

যখনই আপনার ফলোয়ার্সরা দিয়ে দেওয়া আপনার এফিলিয়েট লিংক থেকে কোনো ধরণের পণ্য কিনবেন, আপনি কিছু টাকা কমিশন হিসেবে পাবেন। 

উদাহরণ স্বরূপ, আপনি মেয়েদের একটি মেকআপ এর সাথে রিলেটেড পণ্য নিয়ে রিল ভিডিও তৈরি করলেন, এবং পণ্যটি কেনার জন্য একটি এফিলিয়েট লিংক ভিডিও ডেস্ক্রিপশনে দিয়ে দিলেন। 

যখনই কোনো ইউজার দিয়ে দেওয়া পণ্যের এফিলিয়েট লিংকে ক্লিক করে মেকআপ এর আইটেমটি অর্ডার করবেন, আপনি কিছু টাকা কমিশন হিসেবে পাবেন।  

এমনিতে, ইন্টারনেটে আপনারা নানান affiliate program গুলি পাবেন যেগুলিতে একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে নিজের পছন্দমতো affiliate products এবং services গুলি সিলেক্ট করে সেগুলিকে নিজের reels videos মাধ্যমে প্রচার ও বিক্রি করিয়ে নিয়মিত ইনকাম করতে পারবেন।  

৪. Instagram Reels Play Bonus Programme:

Instagram Reels Play Bonus Programme-টি ক্রিয়েটরদের জন্য নিয়মিত আকর্ষণীয় এবং জনপ্রিয় রিল ভিডিও গুলি তৈরি করে পুরস্কার উপার্জনের একটি দারুন সুযোগ।

এমনিতে এই প্রোগ্রাম এর মূল উদ্দেশ্য হলো, ক্রিয়েটররা যাতে তাদের ট্যালেন্ট এবং ক্রিয়েটিভিটির দ্বারা নিয়মিত ভালো ভালো এবং আকর্ষণীয় শর্ট রিল ভিডিও গুলি তৈরি করার জন্য সবসময় মোটিভেটেড থাকেন, তার জন্যে পুরস্কারের মাধ্যমে তাদেরকে উৎসাহিত করা।

এই প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে রিল ভিডিও নির্মাতারা তাদের ভিডিও পারফরমেন্স এবং রিল গুলিতে হওয়া এনগেজমেন্ট এর উপর নির্ভর করে আর্থিক পুরস্কার লাভ করার সুযোগ পান। 

কিভাবে ইনস্টাগ্রামে রিল ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করা যায়?

বর্তমানের ডিজিটাল যুগে, সোশ্যাল মিডিয়া মানেই কিন্তু শুধু ছবি বা ভিডিও শেয়ার করাটাই হয়ে থাকেনি। বিশেষ করে যখন ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব, ফেসবুক ইত্যাদির মতো প্লাটফর্ম গুলিকে লক্ষ লক্ষ কনটেন্ট নির্মাতারা তাদের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে অনলাইন মাধ্যমে টাকা ইনকামের একটি অনেক শক্তিশালী হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করছেন। 

যদি শুধুমাত্র ইন্সটাগ্রাম এর কথা বলা হয়, সেক্ষেত্রে এখানে শর্ট ফর্ম ভিডিও ফিচার বা রিল ভিডিও চালু হওয়ার পর, ইনস্টাগ্রাম থেকে অর্থ উপার্জনের সুযোগ আগের থেকেও অনেক বেড়েছে।

এক্ষেত্রে, যদি আপনিও ইনস্টাগ্রাম রিল তৈরি করে টাকা ইনকাম করতে চাইছেন, তাহলে আপনাকে নিচে বলে দেওয়া এই গুরুত্বপূর্ণ ধাপ গুলি অনুসরণ করতে হবে।  

১. নির্দিষ্ট এবং টার্গেটেড দর্শক:

Instagram একটি অনেক জনপ্রিয় এবং সর্বাধিক ব্যবহূত অনলাইন সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম গুলির মধ্যে একটি। এবার, আপনাকে মনে রাখতে হবে যে এখানে হাজার লক্ষ ক্রিয়েটররা রয়েছেন যারা নিয়মিত রিল ভিডিও গুলি তৈরি করছেন। 

যদি আপনি নিজের তৈরি করা রিল ভিডিও গুলিকে টার্গেটেট শ্রোতাদের সামনে নিয়ে যেতে চান এবং সঠিক ভাবে ইনকাম করতে চান, তাহলে সব থেকে আগেই আপনাকে একটি নির্দিষ্ট বিষয় (niche) সিলেক্ট করে কেবল সেই বিষয়েই ভিডিও বানিয়ে পাবলিশ করা দরকার। 

এক্ষেত্রে আপনাকে বুঝতে হবে যে, কোন বিষয়টা আপনাকে অন্যান্য ক্রিয়েটরদের থেকে আলাদা করছে এবং কেবল এমন ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করতে হবে যেগুলি আপনার দক্ষতা ও প্যাশনের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়।

তবে ভিডিওর বিষয় যেকোনো হতে পারে।

যেমন ধরুন, রান্না, ফ্যাশন, ফিটনেস, বা কমেডি, সে যাই হোক না কেন, আপনি যেই ভিডিও গুলিকে মনোযোগের সাথে এবং প্যাশনের সাথে তৈরি করতে পারছেন, কেবল সেরকম টপিক নিয়েই ভিডিও তৈরি করুন। তবে মনে রাখবেন, ভিডিওর বিধায় সিলেক্ট করার সময়, সম্ভাব্য ব্র্যান্ড সহযোগিতার বিষয়টাও কিন্তু মাথায় রাখতে হবে। 

২. আকর্ষণীয় এবং প্রাসঙ্গিক কনটেন্ট:

আমার হিসেবে, Instagram Reels-এ সাফল্যের মূল চাবিকাঠি হল আকর্ষণীয় এবং প্রাসঙ্গিক কনটেন্ট তৈরি করা। আপনাকে সবসময় এমন ভিডিও বানানোর কথা ভাবতে হবে যা দর্শকদের আকর্ষণ করতে পারে। 

এক্ষেত্রে শুরুতে আপনাকে বিভিন্ন ভিডিও ফরম্যাটের সাথে এক্সপেরিমেন্টও করতে থাকতে হবে। যেমন ধরুন, শর্ট টিউটোরিয়াল ভিডিও, চ্যালেঞ্জ, বা গল্প বলা ইত্যাদি।

আপনার রিল ভিডিও গুলি যাতে অধিক লোকেরা দেখেন ও আকর্ষিত হন, তার জন্যে ভিডিওতে ট্রেন্ডিং সাউন্ড, ভিডিও ইফেক্ট, এবং ভিডিও ফিল্টারগুলিও ব্যবহার করা দরকার। 

নিয়মিত ভালো ভালো, ট্রেন্ডিং এবং আকর্ষণীয় ভিডিও গুলি তৈরি করতে পারলে, ধীরে ধীরে আপনার ফলোয়ার্স অবশই বাড়তে থাকবে। মনে রাখবেন, যত অধিক ফলোয়ার্স বাড়বে, নিজের রিল ভিডিও গুলির থেকে ইনকামের সম্ভাবনাও কিন্তু ততটাই অধিক হবে।  

৩. ব্র্যান্ড ও অন্যান্য কোম্পানির সাথে সহযোগিতা:

ধীরে ধীরে Instagram-এ যখন আপনার ফলোয়ার্স বাড়বে, নানান ছোট বড় ব্র্যান্ড এবং কোম্পানি গুলি আপনার ভিডিও/প্রোফাইল এর উপর নজর দিতে শুরু করবেন। এক্ষেত্রে, ব্র্যান্ড এবং কোম্পানিগুলি আপনাকে ইমেইল এবং ইনস্টাগ্রামেই সরাসরি মেসেজ করার মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারে।

ব্র্যান্ড গুলি, তাদের পণ্য এবং পরিষেবা গুলি আপনার রিলস ভিডিও গুলির মাধ্যমে ইনস্টাগ্রামে প্রচার করার জন্য আপনাকে টাকা বা নানান ধরণের সুবিধা ইত্যাদি অফার করে থাকে। 

ব্র্যান্ড গুলি মূলত আপনাকে, স্পনসর কন্টেন্ট, প্রোডাক্ট মার্কেটিং বা ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরশিপ এর মতো অফার গুলি দিতে পারে। 

মনে রাখবেন, আপনাকে শুধুমাত্র সেই ব্র্যান্ড গুলির সাথে পার্টনারশীপ করা দরকার যেগুলির পণ্য বা পরিষেবা আপনার দর্শকরা সত্যি পছন্দ করতে পারে বলে মনে হবে।

৪. ইনস্টাগ্রাম এর ফীচার গুলি কাজে লাগান:

Instagram-এর মধ্যে থাকা নানান features গুলিকে কাজে লাগিয়ে আপনি নিজের রিল ভিডিও গুলির দৃশ্যমানতা অনেকটা বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে hashtags, geotags, ইত্যাদি ব্যবহার করার পাশাপাশি অন্যান্য ভিডিও কনটেন্ট ক্রিয়েটরদের সাথে একটি ভালো সম্পর্ক তৈরি করার মতো কাজ গুলি করতে হয়।

রিল ভিডিও গুলির রিচ বাড়ানোর জন্য নানান ট্রেন্ডিং টপিক গুলি সিলেক্ট করে ভিডিও বানালে ভালো। 

৫. মনেটাইজেশন সুযোগ:

ধীরে ধীরে যখন আপনার ফলয়ার্স বাড়বে, আপনাকে নিজের রিল ভিডিও গুলির থেকে টাকা ইনকামের ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা monetization options গুলি ব্যবহার করতে হবে।

যেমন ধরুন, নানান ব্র্যান্ড গুলি, স্পন্সরড কনটেন্ট বা ব্র্যান্ড পার্টনারশীপ এর ক্ষেত্রে আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে বা আপনি চাইলে নিজের পণ্য বা পরিষেবা গুলিও ভিডিওর মাধ্যমে বিক্রি করতে পারবেন।

এছাড়া এফিলিয়েট মার্কেটিং, ইনস্টাগ্রাম রিলস থেকে ইনকাম করার একটি অনেক কার্যকর ও দারুন উপায়। 

কিভাবে ইনস্টাগ্রাম থেকে টাকা ইনকাম করা যায়?

বর্তমান আধুনিক সময়ে, ইনস্টাগ্রাম শুধুমাত্র বন্ধুদের সাথে ছবি শেয়ার করা বা যোগাযোগ করার প্লাটফর্ম হয়ে থাকেনেই।

কেননা, এখন জেকেও যদি মন দিয়ে সঠিক নিয়ম এবং প্রক্রিয়া গুলি অনুসরণ করে কাজ করে থাকেন, তাহলে ইনস্টাগ্রাম থেকে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার বিষয়টা এখন আর কোনো সিক্রেট হয়ে থাকেনি। আজ বিশ্বজুড়ে হাজার হাজার ক্রিয়েটররা নিজের ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট দ্বারা প্রতি মাসে হাজার লক্ষ টাকা ইনকাম করে নিতে পারছেন।

ইনস্টাগ্রাম থেকে টাকা আয় করার সব থেকে জনপ্রিয় উপায় গুলির মধ্যে একটি হলো, স্পন্সরড পোস্ট। মানে, নানান কোম্পানি এবং ব্র্যান্ড গুলি আপনাকে তাদের পণ্য এবং পরিষেবা গুলি ভিডিওর মাধ্যমে প্রচার করতে বলে থাকেন। আর এই কাজের জন্য কোম্পানি গুলি ক্রিয়েটরদের ভালো অংকের টাকাও দেয়।

মনে রাখবেন, ইনস্টাগ্রাম থেকে ইনকাম করার জন্য আপনার একটি ভালো ফলোয়ার বেস থাকতে হবে। আর এর জন্য আপনাকে নিয়মিত হাই কোয়ালিটি কনটেন্ট (text, video, image, graphics) তৈরি করে পাবলিশ করতে হবে।

একবার আপনার আছে যথেষ্ট ফলোয়ার বেস তৈরি হয়ে গেলে, আপনি brands collaboration, sponsored posts, এবং affiliate marketing-এর মতো উপায় গুলিকে কাজে লাগিয়ে প্রচুর ইনকাম করতে পারবেন।

এর বাইরেও, ইনস্টাগ্রাম এর মধ্যে থাকা shoppable posts ফীচারটি ব্যবহার করে সরাসরি নিজের পণ্য এবং পরিষেবা গুলি নিজের টার্গেটেড শ্রোতাদের কাছে বিক্রি করতে পারবেন।

শেষ কথা,,

যদি আপনি ইনস্টাগ্রাম রিলস ভিডিও ক্রিয়েট করে টাকা ইনকাম করতে চাইছেন, তাহলে অবশই সেটা সম্ভব। তবে এর জন্য আপনাকে ধর্য্য ধরে নিয়মিত ভালো ভালো, আকর্ষণীয় এবং ট্রেন্ডিং শর্ট ভিডিও বানিয়ে পাবলিশ করতে হবে। মনে রাখবেন, রিল থেকে ইনকাম কেবল তখন সম্ভব যখন, আপনার কাছে প্রচুর ফলোয়ার্স থাকবে।

আর মনে রাখবেন, একসাথে কোনোদিন হাজার হাজার ফলোয়ার্স কেও পায়না। আপনাকে নিয়মিত কাজ করতে থাকতে হবে এবং ধীরে ধীরে ফলোয়ার্স জোগাড় করতে হবে।

অবশই পড়ুন:

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top