২০২৪ সালে কোন অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করা যায় – Best Online Income Apps List

বর্তমান সময়ে মোবাইল অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করারর ব্যাপারটা এক ধরণের ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে, স্কুল কলেজে পড়া ছাত্রদের মধ্যে মোবাইল দিয়ে অনলাইনে টাকা আয় করার এটাও একটি অনেক জনপ্রিয় উপায় হিসেবে দেখা যাচ্ছে।

তবে app থেকে টাকা ইনকাম করাটা অনলাইন ইনকামের একটি অনেক জনপ্রিয় ও সহজ উপায় হয়ে দাঁড়িয়েছে যদিও আসলে কোন অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করা যায় বা কোন অ্যাপস গুলি আমাদের সত্যি টাকা দিয়ে থাকে, সেটাই হলো একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন।

তবে চিন্তা করতে হবেনা, আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমি আপনাদের এমন ১০টি সেরা এন্ড্রয়েড অ্যাপ গুলির বিষয়ে বলব যেগুলিকে কাজে লাগিয়ে আপনিও টাকা ইনকাম করার সুযোগ পেতে পারবেন।

অবশই পড়ুন: অনলাইনে প্রতিদিন 200 টাকা ইনকাম করা উপায়?

বর্তমানে কোন অ্যাপ দিয়ে ইনকাম করা যায়? সোজা উত্তর

কোন অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করা যায়
Best android apps to earn money online.

দেখুন বন্ধুরা, ইন্টারনেটে যখন আপনি মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার উপায় গুলি খুজবেন, তখন মোবাইল app থেকে টাকা ইনকাম করার বিষয়টাও অনেকেই আপনাকে বলবে।

তবে বেশিরভাগ আর্টিকেল বা ব্লগ গুলিতেই আপনাকে এমন অ্যাপস গুলির বিষয়ে বলা হয় যেগুলিতে কাজ করে কোনো সময় টাকা পাওয়া যায়না। আবার কিছু কিছু অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করতে পারলেও, সে অনেক কম পরিমানের টাকা ইনকাম করা যাবে।

বর্তমান সময়ে তো, মোবাইলে গেম খেলে টাকা ইনকাম করার অ্যাপস গুলি ব্যবহার করেও টাকা ইনকাম করা যাবে বলে অনেকেই বলছেন। তবে মনে রাখা দরকার যে, এই ধরণের apps গুলি ব্যবহার করে দৈনিক ৪০০-৫০০ টাকা ইনকাম করাটাও কোনো ভাবে সম্ভব না।

তাহলে বর্তমানে কোন অ্যাপ দিয়ে সত্যি টাকা ইনকাম করা যায়? কোন অ্যাপে কাজ করে একটা ভালো অংকের টাকা প্রতিমাসে আয় করা যেতে পারে?

এর সোজা উত্তর হলো, “আপনাকে ব্যবহার করতে হবে কিছু বিশ্বস্ত, জেনুইন এবং প্রমাণিত অ্যাপস গুলি”। মানে, এমন অ্যাপস ব্যবহার করুন যেগুলির থেকে অনেকেই টাকা ইনকাম করেছেন এবং যার ইনকাম প্রুফ ও অনেকেরই দ্বারা শেয়ার করা হয়েছে।

ইন্টারনেটে নানান ব্লগ আর্টিকেল এবং রিভিউ গুলি পড়ার মাধ্যমে এই বিষয়ে আপনিও নিশ্চিত হতে পারবেন। তবে, ইন্টারনেট থেকে খানিকটা রিসার্চ করে আমি আপনাদের জন্য সেরা ৯টি টাকা ইনকাম করার অ্যাপস খুঁজে বের করেছি।

ধ্যান দিবেন, এই অ্যাপস গুলি আমি নিজে ব্যবহার করে দেখিনি।

তাই, নিচে বলে দেওয়া অনলাইন ইনকাম অ্যাপস গুলি ব্যবহার করার আগে নিজের থেকে রিসার্চ অবশই করে নিবেন। এছাড়া, ইন্টারনেটে থাকা নানান রিভিউ গুলিও অবশই পড়ে নিবেন।

তাহলে চলুন, ২০২৪ সালে সত্যি কোন অ্যাপ দিয়ে ইনকাম করা যায় এবং টাকা ইনকাম করার বিশ্বস্ত, জেনুইন এবং প্রমাণিত অ্যাপস কোনগুলি সেটা নিচে জেনেনেই।

অবশই পড়ুন: এখন ক্যাপচা পুরন করে ইনকাম করুন

কোন অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করা যায় (২০২৪) – Best income apps list

যখন অনলাইনে টাকা ইনকাম করার অ্যাপস গুলির কথা বলা হচ্ছে তখন আপনাকে এটা অবশই জেনে রাখতে হবে যে আলাদা আলাদা অ্যাপস গুলিতে আলাদা আলাদা রকমের কাজ করতে হয়।

কেননা, ইনকাম অ্যাপস বলতে সে নানান ধরণের অ্যাপস এর কথা বলা যেতে পারে।

যেমন ধরুন, কিছু কিছু অ্যাপস এমন আছে যেখান থেকে রেফার করে টাকা ইনকাম করা যায়, আবার কিছু অ্যাপস থেকে মাইক্রো জব/টাস্ক সম্পূর্ণ করেও ইনকাম করা যেতে পারে।

এভাবেই, সার্ভে সম্পূর্ণ করা, ছবি বিক্রি, ফ্রিল্যান্সিং, কনটেন্ট পাবলিশ, ইত্যাদি নানান অ্যাপস গুলির থেকে নানান ধরণের কাজ গুলি করার মাধ্যমে ইনকাম করা যেতে পারে।

এক্ষেত্রে, আপনি যেই ধরণের কাজ পছন্দ করে থাকেন, সেই কাজ সম্পর্কিত অ্যাপস গুলি ব্যবহার করে পার্ট-টাইম ইনকাম শুরু করতেই পারবেন।

অনলাইন ইনকাম অ্যাপস:কাজের ধরণ:
১. Swagbucksছোট ছোট কাজ, সার্ভে সম্পূর্ণ ইত্যাদি।
২. Qmee: Paid Surveyপেইড সার্ভে সম্পূর্ণ করে ইনকাম।
৩. Roz Dhan: Earn Wallet cashনানান মাইক্রোজব গুলি করতে হয়।
৪. FOAP – Photo selling appঅনলাইনে ছবি বিক্রি করতে হয়।
৫. ySense Appরেফার করে, সার্ভে করে ইত্যাদি।
৬. bKash appঅ্যাপটি রেফার করে ইনকাম করা যায়।
৭. Fiverr appফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে হয়।
৮. Instagramএফিলিয়েট মার্কেটিং, স্পনসরশিপ।
৯. Survey Junkieসার্ভে সম্পূর্ণ করে ইনকাম।

চলুন, এখন আমরা এই প্রত্যেক অনলাইন টাকা ইনকাম অ্যাপস গুলির বিষয়ে বিস্তারিত জেনেনেই এবং এই app গুলির থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনাকে কি কি করতে হবে সেই বিষয়েও জেনেনেই।

১. Swagbucks – Best online income app

Swagbucks, একটি অনেক জনপ্রিয় অনলাইনে টাকা ইনকাম করার ওয়েবসাইট গুলির মধ্যে আরেকটি। তবে এদের মোবাইল app অবশই রয়েছে যেটিকে Google Play Store থেকেও download করে নিতে পারেন।

এখানে সোজা এবং সহজ কাজ গুলি করার ফলে আপনাকে দেওয়া হবে SB Points গুলি। যেমন ধরুন, surveys, playing games, watching videos, searching the internet, ইত্যাদি এই ধরণের কাকাকে মাইক্রো জব গুলি করতে হবে।

একাউন্ট তৈরি করতে আপনাকে কোনো টাকা দিতে হয়না এবং জেকেও একটি ফ্রি একাউন্ট বানিয়ে নিতে পারবেন। ইনকাম করা SB points গুলিকে আপনি অনেক সহজেই gift cards বা PayPal-এর দ্বারা তুলে নিতে পারবেন।

Swagbucks-এর কিছু বৈশিষ্ট:

  • এখানে নিয়মিত সার্ভে পূরণ করে ইনকাম করা যায়।
  • ফ্রীতে একাউন্ট তৈরি করা যাবে।
  • টাকা ইনকাম করার নানান উপায় রয়েছে।
  • PayPal দ্বারা টাকা তুলতে পারবেন।

২. Qmee: Paid Survey

নিজের খালি সময়ে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার আরেকটি দারুন টাকা ইনকাম করার অ্যাপ হলো, “Qmee App”। এর  iOS এবং Android app দুটোই OS ভার্সন রয়েছে।

এমনিতে, আপনি চাইলে App install না করেও এদের ওয়েবসাইট “qmee.com” এর মধ্যে গিয়েও সরাসরি ইন্টারনেট ব্রউজার থেকেও কাজ করতে পারবেন। এখানে মূলত paid surveys গুলি সম্পূর্ণ করে ইনকাম করার সুযোগ দেওয়া হয়।

যখনই আপনি একটি সার্ভে সম্পূর্ণ করবেন, Qmee দ্বারা আপনার piggy bank-এর মধ্যে জমা করে দেওয়া হবে। এছাড়া, এখানে কোনো মিনিমাম উইথড্রয়াল এমাউন্ট লিমিট নেই।

তাই, আপনি যেকোনো সময় নিজের ইনকাম করা টাকা PayPal বা Gift card-এর দ্বারা তুলে নিতে পারবেন। Qmee থেকে নিজের মোবাইলে গেম ডাউনলোড করে সেগুলিকে খেলার মাধমেও টাকা ইনকাম করা যাবে বলে বলা হয়েছে।

Qmee-এর কিছু বৈশিষ্ট:

  • পেইড সার্ভে সম্পূর্ণ করতে হয়।
  • গেম খেলেও টাকা ইনকাম করা যায়।
  • কোনো মিনিমাম পেমেন্ট এমাউন্ট লিমিট নেই।

৩. Roz Dhan: Earn Wallet cash

Roz Dhan, এমনিতে একটি অনেক জনপ্রিয় online money earning app, যেখানে প্রথমবারের জন্য লগইন করার জন্য সরাসরি ৫০ টাকা বোনাস দিয়ে দেওয়া হয়। তবে লগইন করে, নতুন ইউজারের জন্য থাকা কিছু অনেক সাধারণ কাজ গুলি করার মাধ্যমে আপনি আরো ৫০ টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন।

এই app থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনি এর রেফারাল বা ইনভাইট ফ্রেন্ডস এর সুবিধাটি কাজে লাগাতে পারেন। আপনার ইনভাইট করা ফ্রেন্ড যদি এই অ্যাপে লগইন করে থাকেন, সেক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি ১২ টাকা রেফারেল ইনকাম দিয়ে দেওয়া হবে।

এছাড়া, Roz Dhan অ্যাপ থেকে টাকা ইনকাম করার অন্যান্য নানান উপায় গুলিও রয়েছে। যেমন, আর্টিকেল পড়া, সার্ভে সম্পূর্ণ করা, ওয়েবসাইটে ভিজিট করা, গেম খেলে ইত্যাদি।

একবার আপনার RozDhan wallet-এর মধ্যে ৩০০ টাকা জমা হয়ে গেলে, আপনি নিজের Paytm account-এর মধ্যে নিজের ইনকাম করা টাকা তুলে নিতে পারবেন।

Roz Dhan-এর কিছু বৈশিষ্ট:

  • একাধিক কাজ করে ইনকাম করা যাবে।
  • ৫০ টাকা ফার্স্ট লগইন বোনাস দেওয়া হয়।
  • রেফার করেও ইনকাম করার সুযোগ আছে।

৪. FOAP – Photo selling app

Foap app দিয়ে অনেকেই টাকা ইনকাম করছেন এবং আপনিও চাইলে করতে পারবেন। এমনিতে, অনলাইন ইনকাম অ্যাপস বলতে আপনারা নানান ধরণের apps গুলি পাবেন। তবে Foap app তাদের জন্য সেরা যারা ছবি তুলতে পছন্দ করেন।

যদি আপনার মধ্যে ছবি তুলার বেসিক কৌশল গুলি থেকে থাকে, তাহলে আপনিও FOAP APP-এর দ্বারা নিজের ছবি গুলিকে অনলাইনে বিক্রি করিয়ে ভালো মানের টাকা রোজগার করতে পারবেন।

Foap app-এর কিছু বৈশিষ্ট:

  • ছবি বিক্রির ফলে আপনাকে কমিশন দেওয়া হয়।
  • প্রতিটি ছবি বিক্রি করিয়ে প্রায় ৫০% পর্যন্ত কমিশন আয়।
  • প্রমাণিত এবং বিশ্বস্ত অনলাইন ইনকাম অ্যাপ।

৫. ySense App – Earn money online

এমনিতে, ySense App আমি নিজেই ব্যবহার করে দেখেছি এবং এখান থেকে সত্যি টাকা বা গিফ্ট কার্ড ইনকাম করা যায়। আমি এমনিতে ১২ ডলারের মতো টাকা ইনকাম করেছিলাম।

এখানে টাকা ইনকামের ক্ষেত্রে মূলত রেফার করা এবং সার্ভে সম্পূর্ণ করার মতো কাজ গুলি করতে হয়। ySense-এর মধ্যে আপনারা প্রচুর paid survey গুলি পাবেন যেগুলি সম্পূর্ণ করে ভালো মানের টাকা আয় করা যায়।

এছাড়া, নিজের রেফারেল লিংক বা কোড ব্যবহার করে অন্যান্য ব্যক্তিদের ySense এর মধ্যে রেজিস্টার করাতে পারলে, প্রতি একাউন্ট রেজিস্টারের জন্য প্রায় $0.10 থেকে $0.30 টাকা কমিশন হিসেবে পেয়ে যাবেন।

ইনকাম করা টাকা তুলার জন্য, PayPal, Payonееr, Skrill বা gift cards এবং অপসন পেয়ে যাবেন।

ySense-এর কিছু বৈশিষ্ট:

  • প্রচুর পেইড সার্ভে গুলি পাবেন।
  • সার্ভে করে ভালো মানের ইনকাম হয়।
  • রেফার করেও টাকা ইনকাম করার সুযোগ আছে।
  • একাধিক পেমেন্ট মেথড পেয়ে যাবেন।

৬. bKash app থেকে টাকা ইনকাম:

bKash App, একটি অনেক জনপ্রিয় mobile financial service (MFS) যেটা হাজার হাজার লোকেরা ব্যবহার করে থাকেন। এখন আপনারা চাইলে এই bKash app থেকেও কিন্তু টাকা ইনকামের দারুন সুযোগ পেতে পারবেন।

এখান থেকে অনলাইনে টাকা আয় করার উপায়টি হলো, bKash App Referrals

হ্যা, যখনই আপনি আপনার bKash app থেকে সংগ্রহ করা নিজের referral link ব্যবহার করে কোনো নতুন user-কে এই app-এ নিয়ে আসতে পারবেন, আপনাকে প্রতি রেফারের জন্য BDT 50 বোনাস হিসেবে দিয়ে দেওয়া হবে।

এটা এমনিতে অনলাইনে ইনকাম করার একটি অনেক বিশস্ত উপায় বলে বলা যেতেই পারে।

তবে, এই offer শুধুমাত্র 27th December, 2023 পর্যন্ত ভ্যালিড রয়েছে। এমনিতে আপনি চাইলে bKash App Referrals offer পেজে গিয়ে এই অফার এর ভেলিডিটি এবং এই বিষয়ে অধিক জেনেনিতে পারবেন।

এছাড়া, মিনিমাম ৩০০ টি বৈধ রেফারেল দিতে পারলে, smartphone হিসেবে একটি Mega Reward উপহার হিসেবে দেওয়ার কোথাও বলা হয়েছে।

এই রেফারেল অফার 27th December, 2023 পর্যন্ত ভ্যালিড থাকলেও, bKash app refer করে ইনকাম করার অন্যান্য offer অবশই পেয়ে যাবেন।

৭. Fiverr app

Fiverr app, হলো একটি অনেক জনপ্রিয় এবং সেরা freelancing marketplace যেখানে নানান ধরণের রিয়েল অনলাইন জব গুলি পাওয়া যায়। এখানে আপনি নিজের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতার সাথে প্রাসঙ্গিক নানান কাজ গুলি পেয়ে যাবেন।

যেমন ধরুন, আর্টিকেল রাইটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, লোগো ডিজাইন, অ্যানিমেশন, ভয়েস ওভার আর্টিস্ট, ওয়েব ডিজাইনিং ইত্যাদি নানান ধরণের প্রজেক্ট এখানে রয়েছে। কাজ গুলি নিয়ে সময় মতো সম্পূর্ণ করে ক্লায়েন্টদের জমা দিতে পারলে আপনাকে সরাসরি টাকা দিয়ে দেওয়া হয়।

শুরুতে কাজ পেতে খানিকটা কষ্ট হলেও, একজন দক্ষ এবং অভিজ্ঞ ফ্রিল্যান্সার হিসেবে এখানে নিজের পরিচয় তৈরি করতে পারলে, কাজ এবং টাকার অভাব আপনার হবেনা।

Fiverr app-এর কিছু বৈশিষ্ট:

  • নিজের দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতা অনুযায়ী কাজ পাবেন।
  • অনলাইনে পার্ট-টাইম ইনকামের একটি ট্রাস্টেড প্লাটফর্ম।
  • শুরুতে ৫ ডলার নিয়ে ছোট ছোট প্রজেক্ট গুলি করা যায়।
  • বিশ্বজুড়ে যেকোনো দেশ বা জায়গা থেকে কাজ পাওয়া যাবে।

৮. Instagram app থেকে ইনকাম:

অনলাইনে কোন অ্যাপ দিয়ে ইনকাম করা যায়? যদি আপনার মোবাইলে Instagram app install করা আছে, তাহলে এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে আর কোথাও যেতে হবেনা।

বর্তমান সময়ে, হাজার হাজার ক্রিয়েটররা নিজের Instagram profile/account থেকে প্রতিমাসে হাজার লক্ষ টাকা ইনকাম করছেন।

আপনার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে একবার কয়েক হাজার ফলোয়ার্স হয়ে গেলেই, ব্র্যান্ড প্রোডাক্ট প্রমোশন, নিজের পণ্য বিক্রি, এফিলিয়েট মার্কেটিং, পেইড পোস্ট ইত্যাদি নানান মাধ্যমে ইনকাম করা যেতে পারে।

তবে, ফলোয়ার্স জমা করতে খানিকটা সময় অবশই লাগবে যদিও একবার হাজার হাজার ফলোয়ার্স হয়ে গেলে এখান থেকে নিয়মিত প্রতিমাসে নানান মাধ্যমে ইনকাম করা যায়।

সুবিধা ও লাভ:

  • অনলাইন ইনকামের ট্রাস্টেড উপায়।
  • এই মাধ্যমে আনলিমিটেড টাকা ইনকাম করা যায়।
  • নিজের সময় মতো এবং ইচ্ছে মতো কাজ করার সুবিধা।

৯. Survey Junkie

Survey Junkie, একটি জনপ্রিয় online market research community যেখানে একজন মেম্বার হিসেবে আপনি নানান সার্ভে গুলি সম্পূর্ণ করে কিছু ভার্চুয়াল পয়েন্ট গুলি সংগ্রহ করতে পারবেন।

সংগ্রহ করা এই virtual points গুলি আপনি e-gift cards এবং PayPal payments-এর দ্বারা তুলে নিতে পারেন। শুরু করার জন্য আপনাকে নিজের বিষয়ে কিছু সাধারণ তথ্য জমা দিয়ে একটি একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

এবার, আপনাকে আপনার প্রোফাইলের সাথে রিলেটেড নানান সার্ভে গুলি দিয়ে দেওয়া হবে। এখানে সার্ভে স্মপূর্ণ করে আপনারা নিজের ফুল-টাইম জবের মতো ইনকাম করতে পারবেননা যদিও মাসে ৪০ ডলার থেকে ৫০ ডলার অবশই ইনকাম করা যেতেই পারে।

সুবিধা ও লাভ:

  • সংক্ষিপ্ত সার্ভে সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে ইনকাম।
  • সহজে e-gift cards এবং PayPal-এর দ্বারা টাকা তুলে যাবে।

রিলেটেড: গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার ৭টি উপায়

FAQ: কোন অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করা যায়?

১. অনলাইনে পার্ট-টাইম ইনকামের সেরা অ্যাপস কোনটি?

ইন্টারনেট থেকে অনলাইনে ইনকাম করার অ্যাপস এমনিতে অনেক রয়েছে। তবে এদের মধ্যে সেরা অ্যাপস কিছু হলো, Swagbucks, Survey Junkey, ySense, Fiverr, এবং আরো রয়েছে।

২. টাকা ইনকাম করার অ্যাপস গুলি ব্যবহার করতে কি লাগে?

আপনার কাছে একটি এন্ড্রয়েড স্মার্টফোন এবং সেখানে ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই এই অ্যাপস গুলি ব্যবহার করতে পারবেন। এই ধরণের বেশিরভাগ অ্যাপস গুলি সম্পূর্ণ ফ্রি এবং কোনো ডিপোজিট ছাড়া ব্যবহার করা যাবে।

৩. অনলাইনে অর্থ উপার্জনের অ্যাপ গুলি কি নিরাপদ?

প্রত্যেকটি অ্যাপ যে নিরাপদ সেটা কখনো বলা যেতে পারেনা। তবে ইন্টারনেটে এমন অনেক অর্থ উপার্জনের অ্যাপ গুলি রয়েছে যেগুলি সত্যি নিরাপদ এবং যেগুলি অনেকের দ্বারা ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া, এই ধরণের যেকোনো app ব্যবহার করার আগে, এদের অনলাইন রিভিউ দেখার পাশাপাশি Google Play বা Apple App Store রেটিং অবশই দেখে নিবেন।

1 thought on “২০২৪ সালে কোন অ্যাপস থেকে টাকা ইনকাম করা যায় – Best Online Income Apps List”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top