গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার ৭টি উপায়: Earn Money From Google

যদি আপনিও ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকামের স্বপ্ন দেখছেন, তাহলে আপনার এই স্বপ্নকে সত্যি করার কার্যকর উপায় গুলো আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে নিয়ে এসেছি। আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা জানবো, গুগল থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায় এবং Google থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য কি কি লাভজনক ও কার্যকর উপায় গুলো আমরা ব্যবহার করতে পারি।

google থেকে টাকা ইনকাম
7 Ways To Earn Money From Google.

গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার বিষয়টি এখন কিন্তু কোনো ভাবেই আর নতুন বিষয় হয়ে নেই। নানান দেশ-বিদেশ থেকে লক্ষ লক্ষ লোকেরা Google-এর মাধ্যমে প্রতিদিন এতোটা টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাচ্ছেন, যেই টাকা ইনকাম করার কল্পনাও তারা কখনো করেননি।

Blogger, YouTube, AdSense, Play Store ইত্যাদি গুগলের নানান প্লাটফর্ম গুলোকে কাজে লাগিয়ে আপনিও দৈনিক ৪০০ ৫০০ টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন। আপনি নিজেই Google-এর AdSense platform-টি ব্যবহার করার মাধ্যমে প্রতিদিন কমেও ৫০০ টাকা আরামে ইনকাম করছি।

তাই, গুগল থেকে ইনকাম করাটা এখন আর তেমন কোনো বড় ব্যাপার না। গুগল থেকে অনলাইনে আয় করার সঠিক ধারণাটি যদি আপনার কাছে থাকে, তাহলে নানান মাধ্যম গুলিকে কাজে লাগিয়ে আপনি নিয়মিত গুগল থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে Google কিন্তু কোনোভাবেই শুধু মাত্র একটি সার্চ ইঞ্জিন হয়ে থাকেনি। এটি একটি অনেক বড় কোম্পানী যার কাছে আছে নানান টুলস এবং প্লাটফর্ম গুলো যেগুলি আমার এবং আপনার মতো সাধারণ ব্যক্তি এবং ব্যবসায়িকদের ক্ষেত্রে অনেক কাজে লেগে থাকে।

আপনি হয়তো কেবল অনলাইনে সার্চ করার উদ্দেশ্যেই প্রতিদিন গুগল এর ব্যবহার করে থাকেন, কিন্তু আপনি কি জানেন যে গুগল থেকেও টাকা ইনকাম করা যায়? হ্যা এটা অবশই সত্যি, Google-এর দ্বারা এমন বিভিন্ন উপায় গুলো অফার করা হয়েছে যেগুলিকে কাজে লাগিয়ে আমার এবং আপনার মতো একজন সাধারণ ব্যক্তিও ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাবেন।

আর আজকের এই বাংলা আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের, কিভাবে গুগল থেকে টাকা আয় করা যায়? বা কি কি উপায় গুলিকে কাজে লাগিয়ে আপনি গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাবেন, সেই বিষয়ে সম্পূর্ণটা বলবো।

গুগল থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়?

Google থেকে অর্থ উপার্জনের বিষয়টির সাথে বিভিন্ন অনলাইন কৌশল এবং প্ল্যাটফর্ম গুলো জড়িত রয়েছে।

এমনেই একটি জনপ্রিয় পদ্ধতি হল Google AdSense, যেটিকে কাজে লাগিয়ে ওয়েবসাইট/ব্লগের মালিকেরা তাদের কনটেন্ট গুলির সাথে টার্গেটেড ডিসপ্লে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার লাভজনক সুযোগ পেয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে, ওয়েবসাইটের দর্শকরা যখন এই বিজ্ঞাপনগুলির সাথে ইন্টারঅ্যাক্ট করেন বা বিজ্ঞাপনগুলিতে ক্লিক করেন, মূলত তখনই ওয়েবসাইটের মালিকের ইনকাম হয়ে থাকে।

কনটেন্ট ক্রিয়েটররা আবার Google-এর YouTube platform-টি ব্যবহার করেও অনলাইনে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এক্ষেত্রে, ভিডিওতে বিজ্ঞাপন দেখিয়ে, এফিলিয়েট মার্কেটিং, পণ্যের পেইড প্রচার, রেফার করে ইনকাম, স্পনসরশিপ ইত্যাদি নানান ইনকামের উপায় গুলি ব্যবহার করা যায়।

এগুলির বাইরেও গুগল থেকে ইনকাম করার আরেকটি দারুন উপায় হল Google Play Store। এখানে একজন developer, তাদের apps, games এবং in-app purchases গুলিকে বিক্রি করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

Google থেকে টাকা ইনকামের আরো অন্যান্য উপায় গুলিও রয়েছে যেগুলির বিষয়ে আমরা নিচে আলোচনা করেছি। মনে রাখবেন, ইনকামের এই উপায় গুলো ব্যবহার করে, আপনি কল্পনাও করেনি এতটা টাকা ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে।

তবে আপনি, গুগলের যেই প্লাটফর্মটি ব্যবহার করে অনলাইনে ইনকাম করার কথা ভাবছেন, সেই প্লাটফর্মটি কিভাবে কাজ করে এবং প্লাটফর্ম এর সাথে জড়িত জরুরি কৌশল গুলো আপনার জানা থাকতেই হবে।

অবশই পড়ুন: কিভাবে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করব?

গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য কি কি লাগবে?

গুগল থেকে ইনকাম করার জন্য সবচেয়ে আগেই আপনাকে একটি কার্যকর ইনকামের পথ নিশ্চিত করতে হবে। মানে, উপলব্ধ নানান platform গুলির মধ্যে থেকে আপনি কোন প্লাটফর্মটিকে কাজে লাগিয়ে ইনকাম করতে চাইছেন, সেটা শুরুতেই নিশ্চিত করা দরকার।

উদাহরণ স্বরূপ, যেমন আমি লেখালেখি করতে পছন্দ করি, তাই আমি নিজের একটি ব্লগ সাইট তৈরি করে Google-এর AdSense পরিষেবাটিকে কাজে লাগিয়ে ইনকাম করার মধ্যে ধ্যান দিয়েছি।

সেভাবেই, অনেকেই আবার লেখালেখি করতে পছন্দ করেননা যদিও ভিডিও তৈরি করতে বা অ্যাপ তৈরি করতে পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে তারা Google AdMob, YouTube এবং AdSense প্লাটফর্ম গুলিকে কাজে লাগিয়ে গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

তবে মনে রাখবেন, আপনি যেই প্লাটফর্ম বা উপায়টি ব্যবহার করছেননা কেন, আপনাকে সেই প্লাটফর্ম এর বিষয়ে সম্পূর্ণ ভালো করে জেনেনিতে হবে। এছাড়া, সেই প্লাটফর্ম গুলি কিভাবে কাজ করে, ব্যবহারের নিয়ম কি ইত্যাদি সবটাই জানা দরকার।

ইনকামের জন্য কি কি লাগবে:

  • আপনাকে প্রতিদিন কমেও ২-৩ ঘন্টা সময় দিতে কাজ করতে হবে।
  • আপনার কাছে একটি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার থাকতে হবে।
  • স্মার্টফোনে বা ট্যাবে কাজ করতে অসুবিধা হবে।
  • দ্রুত ইন্টারনেট কানেকশন থাকা জরুরি।
  • কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট ব্যবহারের বেসিক নলেজ।
  • কাজে উৎসাহ এবং নিজের ওপর বিশ্বাস থাকা জরুরি।

কারা সহজে গুগল থেকে ইনকাম করতে পারবেন?

আমি বা আপনি, জেকেও গুগল থেকে নানান মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবো। তবে, গুগল থেকে সহজে টাকা ইনকামের কোনো শর্টকাট নেই।

মনে রাখা দরকার যে, Google বা যেকোনো অন্য অনলাইন প্ল্যাটফর্ম গুলোর থেকে অর্থ উপার্জনের জন্য আপনাকে সাধারণত সময়, প্রচেষ্টা এবং কাজের সাথে রিলেটেড কৌশল গুলোর প্রয়োজন হবে।

গুগল হোক বা ইন্টারনেটে থাকা অন্যান্য উপায় গুলি, অনলাইনে দ্রুত অর্থ উপার্জনের কোন নিশ্চিত উপায় কিন্তু নেই। কেননা, ইনকাম হওয়াটা মূলত আপনার দক্ষতা, উত্সর্গ এবং উপলব্ধ সুযোগগুলির মতো বিভিন্ন বিষয়ের উপর নির্ভর করে থাকে।

তাই যেই ব্যক্তিরা, উপলব্ধ সঠিক ইনকামের সুযোগ, উপায় বা প্লাটফর্ম গুলোর নির্বাচন করবেন এবং সঠিক নিয়ম গুলো অনুসরণ করার মাধ্যমে নিয়মিত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন, কাজের সাথে সম্পর্কিত নতুন নতুন কৌশল গুলি শিখবেন, তারাই গুগল থেকে সহজে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পেতে পারবেন।

রিলেটেড: মোবাইলে গেম খেলে টাকা ইনকাম করার অ্যাপস

Google থেকে টাকা ইনকাম করার কার্যকর উপায় গুলো:

গুগল থেকে কিভাবে আয় করা যায়? যা আমরা আগেই বলেছি, এই বিষয়টি নিয়েই আজকের এই গাইডে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করবো। গুগল থেকে ইনকাম শুরু করার জন্য আপনি যা যা করতে পারেন সেই সম্পর্কে এখন আমরা নিচে সরাসরি আলোচনা করবো।

একজন ছাত্র, চাকরি করা ব্যক্তি, রিটায়ার্ড ব্যক্তি, একজন বৃদ্ধ ব্যক্তি বা জেকেও যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করতে চায়, এই উপায় গুলি কাজে লাগিয়ে অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাবেন।

অবশই পড়ুন: স্টুডেন্টদের জন্য অনলাইনে পার্ট টাইম জবের উপায়

ইনকামের উপায়:কি করতে হবে:
১. YouTube Partner Programএকটি ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হবে।
২. Google AdSenseBlog বা YouTube চ্যানেল থাকতে হবে।
৩. Blogging with BloggerBlogger.com দিয়ে ব্লগ তৈরি করুন।
৪. Google Opinion Rewardsসার্ভে সম্পূর্ণ করে ইনকাম।
৫. Google Play Booksঅনলাইন কোর্স বা ই-বুক তৈরি করতে হবে।
৬. Google Play StoreAndroid apps তৈরি করে ইনকাম।
৭. Google PayApp-টি রেফার করে ইনকাম করুন।
How to earn money from Google? Details in Bengali

চলুন, কিভাবে গুগল থেকে টাকা আয় করা যায় এর সাথে জড়িত প্রত্যেকটি উপায়ের বিষয়ে নিচে বিস্তারিত জেনেনেই।

১. YouTube Partner Program

YouTube Partner Program (YPP), এমন একটি প্রোগ্রাম যেটিকে Google দ্বারা তৈরি করা হয়েছে।

প্রোগ্রামটি মূলত সেই সকল YouTube content creators-দের জন্য তৈরি করা হয়েছে যারা YouTube platform-টি ব্যবহার করে নিয়মিত ইউনিক এবং অরিজিনাল ভিডিও কনটেন্ট গুলি পাবলিশ করে থাকেন।

YPP দ্বারা ইউটিউব ক্রিয়েটররা তাদের আপলোড করা ভিডিও গুলিতে বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে টাকা ইনকামের সুযোগ পেয়ে থাকেন। এই প্রোগ্রামটি একজন ব্যক্তি বা ব্যবসাকে ভিডিও তৈরির তাদের এই প্যাশনটিকে অনলাইন আয়ের একটি সম্ভাব্য উৎসে পরিণত করার সুযোগ দিয়ে থাকে।

YouTube Partner Program (YPP)-এর সাথে যুক্ত হওয়ার নিয়ম:

১. আপনাকে YouTube.com-এর সাইটে গিয়ে নিজের গুগল একাউন্ট ব্যবহার করার মাধ্যমে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হবে।

২. আপনি কোন নির্দিষ্ট বিষয়কে টার্গেট করে ভিডিও তৈরি করবেন, সেই বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে।

৩. নিয়মিত High Quality Video গুলি তৈরি করে নিজের চ্যানেলে আপলোড করতে হবে।

৪. মনে রাখতে হবে যে, ভিডিও তৈরির জন্য একটি ভালো ক্যামেরা, মাইক্রোফোন, লাইট ইত্যাদির ব্যবহার করলে ভালো।

৫. ইউটিউবে তাড়াতাড়ি সফলতা পাওয়ার জন্যে নিয়মিয়তা বজায় রেখে ভিডিও আপলোড করাটা জরুরি।

৬. এবার আপনাকে এভাবেই ধীরে ধীরে চ্যানেলের views এবং subscribers সংখ্যা বাড়াতে হবে।

৭. আপনার চ্যানেলটি, YouTube Partner Program-এর eligibility requirements গুলো সম্পূর্ণ করতে পেরেছে নাকি সেটা দেখুন।

৮. এক্ষেত্রে, আপনার চ্যানেলের কিছু নির্ধারিত মিনিমাম সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা এবং ওয়াচ টাইম থাকা প্রয়োজন হবে।

৯. সব ঠিক থাকলে, ইউটিউবের সেটিংস থেকে “Monetization” এর ট্যাবে গিয়ে সেটিকে enable করতে হবে।

১০. চ্যানেলটিকে এপ্রুভ করা হলে, Google AdSense account তৈরি করুন এবং নিজের ভিডিও গুলিতে বিজ্ঞাপন দেখানো শুরু করুন।

১১. এভাবেই, ভিডিও গুলিতে বিজ্ঞাপন দেখানোর মাধ্যমে আপনি নিজের YouTube channel থেকে ইনকাম করতে পারবেন।

২. Google AdSense

গুগল থেকে টাকা আয় করার আরেকটি কার্যকর এবং প্রমাণিত উপায় হলো, “Google AdSense“।

গুগল এডসেন্স, Google দ্বারা তৈরি এমন একটি প্রোগ্রাম যার দ্বারা website owners, bloggers, এবং content creators-রা তাদের অনলাইন কনটেন্ট গুলিকে মনেটাইজ করার ক্ষেত্রে তাদের প্লাটফর্ম গুলিতে টার্গেটেড বিজ্ঞাপন ডিসপ্লে করিয়ে থাকেন।

গুগল দ্বারা তৈরি নানান বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক গুলোকে কাজে লাগিয়ে এবং সেগুলির সুবিধা নিয়ে একজন সাধারণ ব্যক্তি এবং ব্যবসা, এই মাধ্যমে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের দারুন সুবিধা পেয়ে থাকেন।

গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার উপায়:

১. গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার কাছে একটি website/blog থাকতে হবে।

২. আপনাকে সরাসরি, https://www.google.com/adsense, লিংকের মাধ্যমে এডসেন্স এর সাইটে যেতে হবে।

৩. Signup বাটনের ব্যবহার করে আপনি নিজের জন্যে একটি এডসেন্স একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন।

৪. একাউন্ট তৈরি করার সময় আপনার website URL, email address এবং অন্যান্য অনুরোধকৃত তথ্য গুলোর প্রয়োজন হবে।

৫. Website-টি AdSense policies এবং guidelines গুলো মেনে কাজ করছে কিনা তা দেখার জন্যে আপনার এপ্লিকেশনটি রিভিউ করা হবে।

৬. আপনার application/website-টি এপ্রুভ করা হলে এখন নানান ধরণের বিজ্ঞাপন গুলি নিজের ওয়েবসাইটে ডিসপ্লে করাতে পারবেন।

৭. বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য, নিজের এডসেন্স একাউন্টে লগইন করে ad code গুলো তৈরি করতে হয়।

৮. তৈরি করা ad code গুলো ওয়েবসাইটে paste করলেই, এডসেন্স বিজ্ঞাপন গুলো সাইটে ডিসপ্লে হতে শুরু করবে।

৯. একবার আপনার গুগল এডসেন্স একাউন্টে $100 জমা হয়ে গেলে, সেই টাকা সরে সরি নিজের ব্যাঙ্ক একাউন্টে তুলে নিতে পারবেন।

৩. Blogging with Blogger

Blogger.com, গুগলের একটি সম্পূর্ণ ফ্রি প্লাটফর্ম যেখানে গিয়ে জেকেও নিজের জন্য একটি অনলাইন ব্লগ সাইট তৈরি করতে পারবেন।

গুগল থেকে টাকা আয় করার ক্ষেত্রে এই Blogger platform-টির কথা অবশই বলা দরকার, কেননা এটি ব্যবহার করে বিশ্বজুড়ে হাজার হাজার লোকেরা ঘরে বসে কোনো বিনিয়োগ ছাড়া অনলাইনে প্রচুর টাকা ইনকাম করে নিতে পারছেন।

Blogger.com ব্যবহার করার মাধ্যমে অনলাইনে ইনকাম করার ক্ষেত্রে নানান গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো জড়িত রয়েছে। যেমন ধরুন, মূল্যবান কনটেন্ট গুলো তৈরি করা, পাঠকসংখ্যা তৈরি করা এবং ইনকামের নানান কৌশল গুলোর ব্যবহার করে সেগুলোর সুবিধা নেওয়া।

গুগলের ব্লগার প্লাটফর্ম থেকে কিভাবে ইনকাম করবেন?

১. সবচে আগেই নিজের গুগল একাউন্ট ডিটেলস ব্যবহার করে Blogger.com-এ login করুন।

২. আপনি যেই বিষয়ে দক্ষ, জ্ঞানী এবং উত্সাহী সেই বিষয়টি নিয়ে একটি ব্লগ তৈরি করুন।

৩. মনে রাখবেন, আপনাকে তথ্যপূর্ণ, এবং আকর্ষক ব্লগ পোস্ট তৈরি করে নিয়মিত নিজের ব্লগে পাবলিশ করতে হবে।

৪. ভিয়ার্স সংগ্রহ করার উদ্দেশ্যে ব্লগ পোস্ট গুলোকে সোশ্যাল মিডিয়া, ফোরাম এবং অন্যান্য প্লাটফর্ম গুলিতে পাবলিশ করতে পারেন।

৫. ধীরে ধীরে আপনার ব্লগে প্রতিদিন মোটামোটি ভালো সংখ্যায় রিডার্সরা আসতে শুরু করবে।

৬. এবার আপনি নিজের ব্লগটিকে কাজে লাগিয়ে নানান মাধ্যম গুলো ব্যবহার করে অনলাইনে ইনকাম করা শুরু করতে পারবেন।

৭. যেমন ধরুন, Google AdSense, Affiliate Marketing, Sponsored Posts ইত্যাদি।

৪. Google Opinion Rewards

Google Opinion Rewards, গুগল থেকে রিওয়ার্ড আয় করার আরেকটি দারুন উপায়। শুরুতেই বলে দিচ্ছি, এই মাধ্যমে ইনকাম করা রিওয়ার্ড গুলিকে Google Play credits হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।

এটা মূলত একটি mobile app, যেটিকে Google দ্বারা তৈরি করা হয়েছে। App-টি ব্যবহার করে নানান সার্ভে গুলোকে সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে reward income করার সুযোগ পাবেন। তবে যা আমি আগেই বলেছি, আপনাকে ছোট ছোট Google Play credits হিসেবে রিওয়ার্ড গুলো দেওয়া হবে।

App-এর মধ্যে থাকা এই সার্ভেগুলি সাধারণত সংক্ষিপ্ত এবং সহজবোধ্য হয় এবং সেগুলি নানান বিষয় গুলিকে কভার করে থাকে।

আপনি যদি নিজের খালি সময়ে মোবাইলে কিছু সোজা ও সাধারণ সার্ভে গুলো সম্পূর্ণ করার মাধ্যমে Google Play credits ইনকাম করতে চান, তাহলে অবশই গুগল ওপিনিয়ন রিওয়ার্ড অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন।

৫. Google Play Books

আপনি যদি একজন লেখক বা লেখালেখি করতে পছন্দ করেন, তাহলে আপনি Google Play Books-এর পার্টনার সেন্টারের মাধ্যমে Google Play Books-এ নিজের ই-বুকগুলি প্রকাশ করে সেগুলিকে অনলাইনে বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি আপনার ই-বুকটি PDF বা EPUB উভয় formats-এর সাথে তৈরি করে এখানে পাবলিশ করতে পারবেন। বই বিক্রি করার ক্ষেত্রে আপনাকে কোনো ধরণের চিন্তা করতে হবেনা। কেননা, আপনার বই গুলো হোস্টিং, বিক্রয় এবং বিতরণের সম্পূর্ণ দায়িত্ব Google নিবে।

আপনার ইবুক গুলো প্রকাশ ও বিতরণ করার ক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি ব্যবহার করতে হবে, Google Play Books Partner Center-এর। কেবল কিছু মিনিটের মধ্যে আপনি একটি Google Play Books account তৈরি করে নিতে পারবেন।

একাউন্ট তৈরি হওয়ার পর আপনাকে নিজের ই-বুক আপলোড করতে হবে এবং বই এর সাথে জড়িত নানান জরুরি তথ্য গুলো দিয়ে দিতে হবে। বইটি আপলোড করার সময় আপনাকে বইয়ের বিক্রির দাম সেট করতে হবে।

Google Play Books, আপনাকে revenue-sharing model হিসেবে ইনকামের সুযোগ দিয়ে থাকে। মানে, লেখকরা সাধারণত বিক্রি করা প্রতিটি ইবুকের মূল্যের থেকে একটি নির্ধারিত শতাংশ বা শেয়ার ইনকাম করে থাকেন।

৬. Google Play store থেকে ইনকাম

গুগল প্লে স্টোর থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আপনার মধ্যে কিছু কৌশল অবশই থাকতে হবে। এক্ষেত্রে application development-এর জ্ঞান থাকলেই আপনি নানান apps গুলি তৈরি করে প্রচুর টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাবেন।

আপনাকে নিজের তৈরি করা app-টি Google play console-এর ব্যবহার করে গুগল প্লে স্টোরে যুক্ত করতে হয়। এবার যখন ইউজাররা আপনার app-টি তাদের মোবাইলে ইনস্টল করবেন, তখন আপনি নানান মাধ্যমে নিজের app-এর কনটেন্ট গুলিকে monetize করতে পারবেন।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, একজন app developer একটি অ্যাপ তৈরি করে সেটিতে Google AdMob-এর বিজ্ঞাপন লাগিয়ে সেটিকে Google play store-এ জমা দিয়ে তার থেকে প্রচুর টাকা ইনকাম করে থাকেন।

বিজ্ঞাপন ছাড়াও, একটি অ্যাপ থেকে in-app purchases-এর মাধমেও নিয়মিত ইনকাম করা সম্ভব।

৭. Google Pay

Google pay, গুগলের একটি পরিষেবা এবং অ্যাপ যেটি মূলত ব্যাংকিং সেক্টরে কাজ করে থাকে।

অনলাইনে টাকা ট্রান্সফার এবং গ্রহণ করা, অনলাইনে বিল পেমেন্ট, রিচার্জ ইত্যাদি এই ধরণের কাজ গুলো সহজেই এর দ্বারা করা সম্ভব। এখন Google pay app থেকে টাকা ইনকাম করার দুটি উপায় আমাদের কাছে রয়েছে।

একটি হলো রিওয়ার্ড গ্রহণ করার মাধ্যমে এবং আরেকটি হলো অ্যাপটি রেফার করার মাধ্যমে।

Google pay-থেকে যখন টাকা ট্রান্সফার করা হয় বা বিল পেমেন্ট করা হয়, তখন বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কিছু টাকা রিওয়ার্ড হিসেবে গুগল আমাদের দিয়ে দেয়। তবে প্রত্যেকবার কিন্তু রিওয়ার্ড দেওয়া হবেনা। এমনিতে বেশিরভাগ সময় ১ থেকে ৫ টাকা রিওয়ার্ড হিসেবে আমি নিজেই পেয়ে থাকি।

Google pay থেকে টাকা ইনকাম করার আরেকটি উপায় হলো, এর refer & earn program

গুগল পে একাউন্ট তৈরি করার পর আপনাকে “Invite Your Friends To Google Pay” র অপসন দেখানো হবে। Invite-এর মধ্যে click করার পর আপনাকে একটি app referral link দিয়ে দেওয়া হবে যেটিকে সরাসরি শেয়ার বা কপি করে নিতে পারবেন।

এবার যখন আপনার রেফার করা লিংক দিয়ে আপনার বন্ধু বা যেকোনো ব্যক্তি তাদের মোবাইলে Google Pay install করবেন এবং প্রথম অনলাইন পেমেন্ট সম্পূর্ণ করবেন, তখন আপনাকে সরাসরি ২০১ টাকা রেফারেল কমিশন দিয়ে দেওয়া হবে।

মনে রাখবেন, প্রতি রেফারের জন্য কত টাকা দেওয়া হবে, সেটা আলাদা দেশ, সময় এবং পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে আলাদা আলাদা হতে পারে।

FAQ: কিভাবে গুগল থেকে টাকা আয় করা যায়:

প্রশ্ন: আমি কি সত্যি গুগল থেকে টাকা ইনকাম করতে পারব?

হ্যা পারবেন, গুগলের এমন নানান প্লাটফর্ম গুলো রয়েছে যেগুলির মাধ্যমে আমরা অনলাইনে টাকা ইনকামের সুযোগ পেয়ে থাকি। এই প্লাটফর্ম গুলির মধ্যে জনপ্রিয় কিছু প্লাটফর্ম হলো, AdSense, AdMob, YouTube, Google play store ইত্যাদি।

প্রশ্ন: গুগল থেকে কত টাকা ইনকাম করা যাবে?

উপরে বলে দেওয়া প্লাটফর্ম গুলো ব্যবহার করে গুগল থেকে কত টাকা ইনকাম করা যাবে সেটা নানান বিষয় গুলোর উপরে নির্ভর করে থাকে। যেমন, আপনি কোন প্লাটফর্ম ব্যবহার করছেন, কতটুতু কাজ করছেন, আজ সঠিক নিয়ম গুলো অনুসরণ করছেন কি না ইত্যাদি। গুগল থেকে ইনকামের এমন উপায় গুলিও রয়েছে যেগুলির দ্বারা মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনকাম করাটাও সম্ভব।

প্রশ্ন: গুগল এডসেন্স থেকে প্রিতিদিন ৫০০ টাকা ইনকাম করা যাবে?

আপনি যদি এই বিষয়ে আমার ব্যক্তিগত পরামর্শ জানতে চাইছেন, তাহলে গুগল এডসেন্স থেকে প্রিতিদিন ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা ইনকাম করাটা অবশই সম্ভব। এমন প্রচুর ব্লগার এবং ইউটিউবাররা রয়েছেন যারা গুগল এডসেন্স থেকে মাসে ১৫ থেকে ৩০ হাজার আরামে আয় করে নিচ্ছেন।

আমার পরামর্শ:

Google থেকে income করার উপায় গুলো ব্যবহার করে যদি আপনি প্রতিদিন ৫০০ থেকে ১০০০ টাকা বা তার থেকেও অধিক ইনকাম করতে চাইছেন, তাহলে আমি আপনাকে Google AdSense, YouTube, Google Play Store, এই উপায় গুলো ব্যবহার করার পরামর্শ দিবো।

কেননা, এই উপায় গুলো অনেকেই ব্যবহার করছেন এবং উপায় গুলি অনলাইনে টাকা ইনকামের অনেক কার্যকর ও লাভজনক উপায় হিসেবে প্রমাণিতও হয়েছে। তাহলে আশা করছি, গুগল থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়, এই বিষয়টি সম্পূর্ণ স্পষ্ট ভাবে বুঝতে পেরেছেন।

গুগল থেকে অনলাইনে ইনকাম করার উপায় গুলো ভালো লেগে থাকলে আমাদের আর্টিকেলটি সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার অবশই করবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top