ফ্রিতে অনলাইনে ইনকাম করার সাইট যেগুলি সত্যি টাকা দেয় – ২০২৪

ইন্টারনেট থেকে ইনকাম করার এমন প্রচুর ওয়েবসাইট বা উপায় রয়েছে যেগুলি আমাদের প্যাসিভ ইনকামের সুযোগ দিয়ে থাকে। প্যাসিভ ইনকাম বলতে পার্ট-টাইম এক্সট্রা ইনকামের এমন একটি মাধ্যম যেখানে আপনি ঘুমিয়ে থেকেও নিয়মিত ইনকামের সুযোগ পেয়ে থাকেন।

এক্সট্রা ইনকামের পুরোনো ধরণ বা উপায় গুলি কাজে লাগিয়ে টাকা আয় করাটা বর্তমান সময়ে একটি অনেক কঠিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। ইনকামের কেবল একটি মূল উৎস থাকার তুলনায় একাধিক ছোট ছোট উপায় থাকাটা আমার হিসেবে কার্যকর।

তবে ধন্যবাদ দিতে হবে বর্তমানের এই আধুনিক ও উন্নত ডিজিটাল প্রযুক্তিকে। কেননা, আজ প্রযুক্তি এতটাই উন্নত যে জেকেও ঘরে বসে নিজের খালি সময়ে সময়ে সেরা ফ্রি অনলাইন ইনকাম সাইট গুলি ব্যবহার করে ইন্টারনেট থেকে ইনকাম করে নিতে পারছেন।

এতে, ফুল-টাইম চাকরির পাশাপাশি এক্সট্রা ইনকামের একটি দারুন সুযোগ তৈরি করা যেতে পারে।

আর তাই, আজকের এই আর্টিকেলের মধ্যে আমি আপনাদের সাথে এমন ৯টি সেরা ওয়েবসাইট গুলির বিষয়ে আলোচনা করবো যেগুলি ফ্রিতে অনলাইন ইনকাম করার ক্ষেত্রে প্রচুর পরিমানে ব্যবহার করা হয় এবং যেগুলি সত্যি টাকা দেয়।

অবশই পড়ুন:

আর্টিকেল সূচি: show

ফ্রি অনলাইন ইনকাম সাইটগুলো কিভাবে কাজ করে?

ইন্টারনেট ওয়ার্ল্ডে এমন অনেক অনলাইন আর্নিং সাইট রয়েছে, যেগুলো সহজেই আপনাকে ১০০% রিয়েল টাকা ইনকাম করতে সাহায্য করে।

তবে, এই ধরণের ওয়েবসাইটগুলোতে কাজের ধরণ একে অপরের তুলনায় অনেকটাই আলাদা। এদের মধ্যে কিছু-কিছু সাইট কাস্টমারদের সার্ভিস অথবা প্রোডাক্ট প্রোভাইড করার মাধ্যমে ইনকামের সুযোগ দেয়।

যেহেতু, এই সাইটগুলো মানুষের কাছে যথেষ্ট জনপ্রিয় হয়েছে, তাই এখান থেকে রোজগারের সুযোগও অনেকটাই বেশি।

চলুন, তাহলে দেখা যাক, মূলত কি কি উপায়ে আমরা অনলাইন মাধ্যম থেকে সত্যি রোজগার করতে পারি,

১. ফ্রীলান্সিং:

অনলাইন মাধ্যমে ইনকামের অন্যতম সেরা উপায় হল ফ্রীলান্সিং।

আসলে, এটা হল একটা স্বাধীন পেশা, যেখানে নির্দিষ্ট সার্ভিসের বিনিময়ে আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা পে করা হয়। এই ফ্রীলান্সিং কাজ নানা ধরণের হয়, যেমন- রাইটিং, এডিটিং, ম্যানেজমেন্ট, ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্স, ওয়েব ডেভেলপিং ও অন্যান্য।

আপনি এমন অনেক ফ্রীলান্সিং ওয়েবসাইট পাবেন, যেখানে এই ধরণের জব পোস্টিং গুলি দেওয়া থাকে।

এখানে মূলত বিভিন্ন ক্লায়েন্টের মাধ্যমে কাজের সুযোগ পাবেন।

২. অন্ট্রাপ্রোনিওরশিপ:

ডেস্ক জবের বদলে এখন অনলাইন স্টার্ট-আপ বিজনেসের আইডিয়াটা বেশ ট্রেন্ডিং।

এমনকি, সরকারের স্টার্ট-আপ ফান্ডিংয়ের দৌলতে ভালো বিজনেস আইডিয়া, প্রোডাক্ট বা সার্ভিস, নেটওয়ার্কিং এবং মার্কেট প্ল্যানিং থাকলেই সহজেই নতুন বিজনেস স্টার্ট করা সম্ভব।

এমনকি, ভালো ওয়েবসাইট ক্রিয়েট করেও অনলাইনে সফলভাবে বিজনেস চালানো যায়।

৩. লাইফ কোচিং:

নানা সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম বা জব পোস্টিং ওয়েবসাইট রয়েছে, যেখান থেকে লাইফ কোচিংয়ের মাধ্যমেও অনলাইন থেকে ইনকাম করার উপায় রয়েছে।

আপনি যদি মোটিভেটিং কথাবার্তা বলতে ভালোবাসেন বা নিজের পার্সোনাল সাকসেস জার্নি শেয়ার করতে চান, তাহলে লাইফ কোচিংয়ের মাধ্যমেও ইনকামের সুযোগ রয়েছে।

এক্ষেত্রে, নানান সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম/সাইট এবং ইউটিউবের এর মতো সাইট গুলি আপনার কাজে আসবে।

৪. অনলাইন কোর্স:

বিভিন্ন অনলাইন লার্নিং প্ল্যাটফর্ম বা ওয়েবসাইট রয়েছে, যেগুলোতে বিভিন্ন অনলাইন কোর্স ডিসাইন করে সেগুলিকে সেল করার সুবিধা দেওয়া হয়।

আপনি চাইলে, আপনি যে বিষয়ে এক্সপার্ট সেই বিষয়ের উপর কোনো অনলাইন ভিডিও কোর্স বানিয়েও সেল করতে পারেন।

৫. রেফার করে ইনকাম করার সাইট/অ্যাপ:

ইন্টারনেটে এমন নানান অ্যাপস এবং ওয়েবসাইট গুলি আপনারা পাবেন যেগুলিতে রেফার করে টাকা ইনকাম করার সুযোগ গুলি দেওয়া হয়। Ysense, Google pay, Paytm money, swagbucks.com, ইত্যাদি এই ধরণের নানান ওয়েবসাইট এবং অ্যাপস গুলি রয়েছে, যেগুলিকে রেফার করে রেফারেল ইনকাম আয় করা যায়।

রিলেটেড: প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকা আয় করার কার্যকর উপায়

কিভাবে অনলাইন ইনকাম চালু করা যায়?

অনলাইন মাধ্যম থেকে ইনকাম শুরু করার বিষয়টা কিন্তু বেশ চ্যালেঞ্জিং, তবে অসম্ভব মোটেই নয়। একটু ধৈর্য ধরে, সময় নিয়ে ও পরিশ্রম করলে কিন্তু সত্যিই অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

আর আমরা প্রত্যেকেই জানি যে, অনলাইন মাধ্যমে আয়ের প্রধান প্ল্যাটফর্মই হল ইন্টারনেট।

এই ইন্টারনেট দুনিয়া হল এমন একটা জায়গা, যেখান থেকে প্রোডাক্ট কেনাবেচা করা, নতুন স্কিল শেখা বা নতুন-নতুন মানুষদের সাথে যোগাযোগ করার মতো ব্যাপারগুলো খুবই সহজ হয়ে গেছে।

এইসব কিছুর মধ্যেই, বিভিন্ন ফ্রি অনলাইন ইনকাম ওয়েবসাইটের মাধ্যমেও নানান অনলাইন কাজের উপায় গুলি এসে গিয়েছে।

এই উপায়গুলোর মধ্যে জনপ্রিয় কিছু উপায় হল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, অনলাইন সার্ভে ফিলআপ, ব্লগিং, পডকাস্টিং, কোর্স সেলিং, ফ্রীলান্সিং, ইনফ্লুয়েন্স মার্কেটিং এবং অন্যান্য।

তাই, যদি আপনি প্রশ্ন করে থাকেন যে, কিভাবে অনলাইন ইনকাম চালু করা যাবে, সেক্ষেত্রে বলে দেওয়া এই উপায় গুলি কাজে লাগিয়ে অনলাইনে সত্যি ইনকাম করা যায়।

রিলেটেড: অনলাইনে প্রতিদিন 200 টাকা ইনকাম করা উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার ৯টি ফ্রি সাইট – ২০২৪

Free online income sites list in Bengali.

নিচে আমরা সেরা কয়েকটি ফ্রি অনলাইন ইনকাম সাইটগুলো নিয়ে নিচে আলোচনা করলাম।

১. Google Adsense:

একটা ব্লগ, ইউটিউব চ্যানেল বা ওয়েবসাইট থাকলেই Google AdSense অনলাইন মাধ্যম থেকে প্রায় বিনা খরচেই রোজগারের সুযোগ করে দেয়।

এটি আসলে হল একটা বিনামূল্যের অ্যাডভার্টাইসিং প্রোগ্রাম যেখানে ফ্রীতেই রেজিস্টার করা যায়।

এখানে একটি একাউন্ট রেজিস্ট্রেশনের পর যে কোডটা আসে, সেটা আপনার ব্লগ বা চ্যানেলে অ্যাড করলেই কাজ হয়ে যায়।

Google AdSense যেভাবে কাজ করে,

  • একটি ব্লগ সাইট থাকতে হবে,
  • নিজের ব্লগে এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন দেখাতে হয়,
  • অ্যাডের ধরণ বাছতে হয়,
  • অ্যাডের প্লেসমেন্ট ঠিক করতে হয়,
  • হাই-রেভিনিউ আসে এমন অ্যাড বাছতে হয়,

আপনার ইউটিউবের চ্যানেল বা ব্লগের ট্রাফিকের উপর নির্ভর করে এই সাইট থেকে কম বেশি পরিমানে টাকা ইনকাম করা যায়। এছাড়া, এখান থেকে আমরা ডলারে টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাই।

অবশই পড়ুন: গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার ৭টি উপায়

২. ইউটিউব থেকে ইনকাম:

ইউটিউব হল এমন একটা ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম যেখানেও ফ্রিতে প্রচুর টাকা ইনকামের চান্স আছে। এখানে নিজের কন্টেন্টের বিষয় ও চ্যানেল সেটআপ করে নিয়ে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হয়।

এরপর, আপনার কন্টেন্টের ভিউ, ট্রাফিক ও এনগেজমেন্টের উপর নির্ভর করে আপনার আয়ের পরিমাণ নির্ধারিত হয়। এছাড়াও, আপনি স্পন্সর্ড পোস্টস থেকেও অতিরিক্ত ইনকামের সুযোগ পাবেন।

তবে, এখান থেকে আয়ের জন্যে অবশ্যই কয়েকটা বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে,

  • ট্রেন্ডিং নিশ বা বিষয় বাছা,
  • নিয়মিত ভিডিও বানিয়ে আপলোড দিতে হয়,
  • কন্টেন্টের ভালো কোয়ালিটি,
  • বিষয় সম্পর্কে আপনার জ্ঞান,
  • অডিয়েন্স টানার মতো কনটেন্ট বানানো এবং ইত্যাদি।

৩. Amazon-থেকে ইনকাম:

অনলাইনে টাকা ইনকাম করার একটা ফ্রি সাইট হিসেবে Amazon-এর জনপ্রিয়তা সারা পৃথিবী জুড়েই রয়েছে।

এই ইন্টারন্যাশনাল ওয়েবসাইটে নিজেকে একজন সেলার হিসেবে রেজিস্টার করে অনলাইনে বিভিন্ন প্রোডাক্ট সেল করেও ইনকাম করা যায়।

এছাড়া, এই বিখ্যাত ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের Amazon Affiliate Program-এর থেকেও প্যাসিভ ইনকাম আসে।

এই প্রোগ্রামে কোনো নির্দিষ্ট প্রোডাক্টের প্রমোশন করার বিনিময়ে অনেকটা পরিমাণ টাকা কমিশন দেওয়া হয়।

৪. ডিজিটাল মার্কেটিং:

ডিজিটাল মার্কেটিং হল অনলাইন ইনকামের একটা অন্যতম সেরা উপায়। বিভিন্ন ডিজিটাল মার্কেটিং ওয়েবসাইটগুলোর সাহায্যে বিক্রেতা ও ক্রেতাদের মধ্যে অনলাইনে সরাসরি যোগাযোগ তৈরী করা যায়।

বিশেষ করে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে এই ডিজিটাল মার্কেটিংকে কাজে লাগিয়ে ব্লগস বা ইউটিউব কন্টেন্টের সাহায্যে প্রোডাক্ট বা সার্ভিস বিক্রি করা যায়।

এই সার্ভিসের মধ্যে কনটেন্ট রাইটিং, গ্রাফিক ডিসাইনিং, ভিডিও কনটেন্ট এডিটিং, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট, বা ব্লগের মতো বিষয়গুলোও পড়ে।

আপনি ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের সাহায্যেও অনলাইন ইনকামের অতিরিক্ত রাস্তা তৈরী করতে পারেন।

৫. Shutterstock:

বহু স্টক ফোটোগ্রাফি ওয়েবসাইটের মধ্যে Shutterstock হল যথেষ্ট পরিচিত একটা নাম।

আপনি যদি নেশায় বা পেশায় ফোটোগ্রাফি করে থাকেন, তাহলে উপরি ইনকামের উপায় হিসেবে নিজের তোলা ছবিগুলো এই ওয়েবসাইটে আপলোড করতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনার ছবিগুলো যতবার থার্ড পার্টি দ্বারা কেনা হবে, আপনি ততবারই Shutterstock থেকে কমিশন পাবেন।

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা ইনকাম করার অন্যান্য নানান সাইট গুলি রয়েছে যেগুলি আপনারা ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন, 

  1. 500px
  2. Adobe Stock,
  3. Alamy,
  4. SmugMug,
  5. Fotomoto,
  6. Snapped4u,
  7. Getty Images.

এছাড়াও আরো অনেক সাইট ইন্টারনেটে পাবেন যেগুলিতে ছবি আপলোড করে টাকা ইনকামের সুযোগ পাওয়া যায়।

৬. Upwork:

যখন, সেরা ফ্রি অনলাইন ইনকাম সাইট গুলির কথা বলা হচ্ছে তখন Upwork-এর নাম তো অবশই নিতেই হবে।

বিশ্বের বিখ্যাত সেরা ফ্রীলান্সিং মার্কেটপ্লেস বা ওয়েবসাইট হিসেবে Upwork হল ফ্রীলান্সারদের জন্যে খুবই জরুরি ও কাজের একটা প্ল্যাটফর্ম।

এখানে কনটেন্ট রাইটিং থেকে শুরু করে ওয়েব ডিজাইনিং, ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের মতো প্রতিটা ইন্ডাস্ট্রির ইন্টারন্যাশনাল জব পোস্টিং গুলি থাকে।

এই অনলাইন সাইট থেকে ফ্রীলান্সিং, পার্ট-টাইম বা কন্ট্রাক্টচুয়াল ভিত্তিতে কাজ করে ইনকাম করা যায়। আর, এখানেও বিনামূল্যে রেজিস্টার করা যায়।

Upwork সাইট এর কিছু সুবিধা:

  • কোনো টাকা ছাড়া ফ্রীতে একাউন্ট তৈরি,
  • নিজের দক্ষতা ও রুচি হিসেবে কাজ পাবেন,
  • অনলাইন পার্ট-টাইম ইনকামের সেরা সাইট,
  • নিজের খালি সময়ে যেকোনো জায়গার থেকে কাজ করার সুবিধা।

৭. Zerodha:

নিজের কাছে থাকা টাকা গুলিকে খাটিয়ে অতিরিক্ত টাকা ইনকাম করতে চান? তাহলে অনলাইন শেয়ার মার্কেটে ইনভেস্ট করতে পারেন।

আর, অনলাইনে টাকা ইনভেস্ট করার সবথেকে নিরাপদ সাইট হল Zerodha। এই সাইটের সাহায্যে আপনি স্টকে, মিউচুয়াল ফান্ডে, বা ডেরাইভেটিভে টাকা লাগাতে পারেন।
আপনার স্টকের বিষয়ে ধারণা না থাকলে Varsity by Zerodha- এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনি শেয়ার মার্কেট সম্পর্কে শিখতে পারেন।

তবে, মনে রাখবেন যে, শেয়ার মার্কেটে ইনভেস্ট করলে আর্থিক ঝুঁকির সম্ভাবনা থাকে।

৮. Clarity.fm:

একজন পেশাদার কন্সাল্ট্যান্ট হিসেবে আপনি Clarity.fm ওয়েবসাইটে নিজেকে রেজিস্টার করতে পারেন।

এখানে বিজনেস, আইন-কানুন, ট্যাক্স বা আপনার প্রফেশন অনুযায়ী যেকোনো বিষয়ে অনলাইন কনসালটেশন দিতে পারেন।

এই ওয়েবসাইটে নিজের প্রোফাইল বানালে কাস্টমাররা টাকার বিনিময়ে মিটিং বুক করে কনসালটেশন নিয়ে থাকেন।

আপনি এখানে ইউটিউব চ্যানেল, ব্লগিং, কনটেন্ট রাইটিংয়ের বিষয়েও কনসালটেশন দিতে পারেন।

৯. Meesho:

অনলাইন রিসেলিং প্ল্যাটফর্মের মধ্যে Meesho যথেষ্ট জনপ্রিয় একটা ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম।

এখানেও একজন রিসেলার হিসেবে যোগ দিয়ে যথেষ্ট পরিমাণ টাকা আয় করা সম্ভব। এমনকি, নিজস্ব প্রোডাক্ট না থাকলেও, আপনি মিশোর বিভিন্ন সেলারের হয়েও রিসেলিং করতে পারবেন।

১০. Guru:

Upwork-এর মতো Guru হল আরও একটা ভালো ফ্রীলাসিং কাজের ওয়েবসাইট।

এখানেও কনটেন্ট রাইটিং, ট্রান্সলেশন, অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের মতো নানান কাজ করে টাকা রোজগার করা যায়। তবে, এখানে পেইড রেজিস্ট্রেশন লাগে।

আর, এখান থেকে পাওয়া প্রতিটা কাজের কমিশন হিসেবে ৪ থেকে ৯% পর্যন্ত টাকা কাটা হয়।

১১. Ysense.com:

বিখ্যাত মানি-মেকিং ওয়েবসাইট হিসেবে Ysense.com-এ আপনি পেইড-টু-ক্লিক বেসিসে টাকা রোজগারের সুযোগ পান।

টাকা ইনকাম করার জন্য এই সাইটে আপনাকে নানান কাজ গুলি করতে হয়। যেমন, পেইড সার্ভে সম্পূর্ণ করা, বিজ্ঞাপন দেখা, ওয়েবসাইট রেজিস্ট্রেশন, এমনকি সাইটটি অন্যান্য ব্যক্তিদের রেফার করেও টাকা ইনকাম করা যায়।

এই ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করা টাকা গুলি আপনারা Gift card বা PayPal-এর দ্বারা তুলে নিতে পারবেন।

আমি নিজেই ySense সাইটে কাজ করে কিছু দিনের মধ্যে $15-$20 ইনকাম করে নিয়েছি। তাই, এই সাইটে কাজ করে টাকা অবশই পাওয়া যায়।

১২. Udemy:

Udemy হল এমন একটা প্ল্যাটফর্ম, যেখানে বিভিন্ন অনলাইন ট্রেনিং ও কোর্স পাওয়া যায়।

এখানে আপনি ‘teach course’-এ রেজিস্টার করে একাধিক অনলাইন ট্রেনিং রিসোর্স বা কোর্স-সম্পর্কিত মেটেরিয়াল বানিয়ে বিক্রি করতে পারেন।

Udemy-তে আপনি কোর্স মেটেরিয়াল বানানোর জন্যে প্রয়োজনীয় টুলসও পেয়ে যাবেন।

আমার চেনা পরিচিত একজন, সে ঘরে বসে ভিডিও কোর্স গুলি তৈরি করে Udemy-তে বিক্রি করছেন এবং নিয়মিত প্যাসিভ ইনকাম করছেন।

১৩. Broxer:

অন্যান্য জব পোস্টিং ওয়েবসাইটের মতো Broxer-এও অনলাইন আয়ের একাধিক উপায় গুলি পাবেন।

এখানে বিসনেস, রাইটিং, মার্কেটিং ও লাইফস্টাইল সেক্টরের উপর প্রচুর জব-পোস্টিং থাকে। তাছাড়াও এখানে অনলাইন, অফলাইন, অন-সাইট ফ্রীলান্সিং-এর মতো জবের ক্যাটেগরিও আছে।

অনলাইন ইনকামের সেরা সাইট কোনটা?

অনলাইন মাধ্যম থেকে ইনকামের বিভিন্ন রকমের সাইট থাকলেও, এমন অনেক ফেক সাইটও থাকে, যেগুলো মানুষকে ঠকাতে পারে।

তাই আমার হিসেবে, নিরাপদে অনলাইনে ইনকাম করার কয়েকটা সেরা সাইট হল ইউটিউব, Google AdSense, জিরোধা, অ্যামাজন, ySense, এবং মিশো।

এর বাইরেও, আপনি অনলাইনে ছবি বিক্রি করে ইনকাম করার নানান সাইট গুলি এবং পাশাপাশি বিশ্বস্ত ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম গুলি ব্যবহার করতে পারেন।

কিভাবে অনলাইনে আসল টাকা ইনকাম করতে পারবো?

অনলাইন মাধ্যমে সেইসব ওয়েবসাইটগুলোকে এড়িয়ে চলা উচিত, যেগুলো আপনাকে মিনিটে প্রচুর টাকা ইনকামের  মিথ্যে দাবি করে।

আসলে, বিনা পরিশ্রমে মিনিটের মধ্যে টাকা ইনকাম করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। অনলাইন থেকে রিয়েল মানি ইনকাম করতে চাইলে আপনি বিভিন্ন ফ্রীলান্সিং কাজের ওয়েবসাইটগুলো দেখতে পারেন।

অনলাইনে কিভাবে তাড়াতাড়ি ৫০০ টাকা ইনকাম করবো?

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কুইক-মানি আর্নিং সাইটগুলো স্ক্যাম করে থাকে। তাই, ৫০০ টাকা ইনস্ট্যান্ট আয় করতে চাইলে, ফ্রীল্যান্স ওয়েবসাইটগুলোতে আওয়ার্লি-বেসিস প্রজেক্টগুলোতে কাজ করতে পারেন।

কোন ওয়েবসাইটগুলো আপনাকে পে করবে?

অনলাইনে বেশ কিছু ভালো ওয়েবসাইট রয়েছে, যেগুলো সামান্য কিছু কাজের বিনিময়ে আপনাকে টাকা দেয়। এরকম কয়েকটা সেফ সাইট হল ইউটিউব, অ্যাডসেন্স, মিশো ও অন্যান্য।

অনলাইনে একদিনে কিভাবে ১০০০ টাকা ইনকাম করবো?

অনলাইনে একদিনে ১০০০ টাকা আয়ের কয়েকটি উপায় হল,

  • কনটেন্ট রাইটিং,
  • রেফার করে ইনকাম করার সাইট,
  • অনলাইন টিউটোরিং,
  • Google Adsense,
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং,
  • সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট,
  • ব্লগিং,
  • ইউটিউব চ্যানেল,
  • অনলাইন কোর্স সেলিং ও অন্যান্য।

উপসংহার:

ইন্টারনেটে ফ্রিতে টাকা আয় করার নানান ইনকাম সাইট গুলি আপনারা পাবেন। তবে মনে রাখবেন, এমনও অনেক ফ্রি ইনকাম সাইট আছে যেগুলিতে কাজ করার পর আমাদের টাকা দেওয়া হয়না। বা, অকারণে আমাদের একাউন্ট ব্যান বা সাসপেন্ড করে দেওয়া হয়।

তাই, নিজের মূল্যবান সময় গুলিকে অকারণে নষ্ট করার কোনো মানে হয়না। এক্ষেত্রে, যেকোনো ধরণের সাইটে কাজ করার আগে সেই সাইট এর বিষয়ে ভালো করে যাচাই করে নিবেন এবং সাইট গুলির অনলাইন রিভিউ পড়ে নিবেন।

যদি আপনি অনলাইন মাধ্যমে রোজগার করতে চাইছেন এবং কোনো টাকা না লাগিয়ে সম্পূর্ণ ফ্রীতে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চাইছেন, সেক্ষেত্রে সব ধরণের ফ্রি অনলাইন ইনকাম সাইট গুলি ব্যবহার না করাটাই ভালো।

এক্ষেত্রে আপনারা, এডসেন্স, ySense, swagbucks, Shutterstock, Fiverr, Upwork, Udemy, YouTube, ইত্যাদি এই ধরণের সাইট গুলি ব্যবহার করলেই ভালো।

অবশই পড়ুন: দৈনিক ৪০০-৫০০ টাকা ইনকাম করার নতুন উপায়

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top